ঢাকা ০৫:৩৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাজীগঞ্জ ঐতিহাসিক বড় মসজিদে ঈদুল আযহার ৩টি জামায়াত অনুষ্ঠিত

  • আপডেট: ০৩:৪২:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪
  • ২২

হাজীগঞ্জ ঐতিহাসিক বড় মসজিদের প্রথম জামায়াতে মসজিদ কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে মসজিদের মাঠেও নামাজ আদায় করে মুসল্লিরা।

ইবাদতের মারকাজ খ্যাত হাজীগঞ্জ ঐতিহাসিক বড় মসজিদ কমপ্লেক্সে ঈদুল আযহার ৩টি জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রথম জামাত হয়েছে সকাল সাড়ে ৬ টায়। ইমামতি করেছেন, মসজিদের খতিব ও পেশ ইমাম মুফতি মোহাম্মদ আব্দুর রউফ।

ঈদের দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮ টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইমামতি করেছেন, মসজিদের সহকারী ইমাম হাফেজ মাওলানা মো. আনাছ।

তৃতীয় জামাত সকাল ১০ টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে, ইমামতি করেন, সহকারী ইমাম মুফতি মো. এমদাদ উল্যাহ্।

প্রত্যেক জামায়াতে মুসল্লিদের উপচেপড়া ভীড় ছিলো। বিশেষ করে সকাল সাড়ে ৬টার জামায়াতে মসজিদের নিচতলা, দ্বিতীয় তলা ও মাঠ পর্যন্ত মুসল্লিদের কাতার ছড়িয়ে পড়ে। প্রথম জামায়াতে নামাজ পড়তে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা ফজর পড়ে জায়নামাজ নিয়ে মসজিদে আসতে শুরু করে সাড়ে ৫টার মধ্যেই মসজিদের নিচতলা ও দ্বিতীয় তলা কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে পড়ে। ৬টায় বয়ান শুরু করেন মসজিদের খতিব ও পেশ ইমাম মুফতি মোহাম্মদ আব্দুর রউফ।

প্রতিটি জামাতে দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ শেষে ফিলিস্তিনসহ সমগ্র মুসলিম উম্মাহ, দেশ ও জাতির কল্যাণ, সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

বিএনপি-জাময়াতের নাশকতায় চাঁদপুরে পুলিশের ৭ মামলায় আসামী ৩ সহস্রাধীক

হাজীগঞ্জ ঐতিহাসিক বড় মসজিদে ঈদুল আযহার ৩টি জামায়াত অনুষ্ঠিত

আপডেট: ০৩:৪২:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪

ইবাদতের মারকাজ খ্যাত হাজীগঞ্জ ঐতিহাসিক বড় মসজিদ কমপ্লেক্সে ঈদুল আযহার ৩টি জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রথম জামাত হয়েছে সকাল সাড়ে ৬ টায়। ইমামতি করেছেন, মসজিদের খতিব ও পেশ ইমাম মুফতি মোহাম্মদ আব্দুর রউফ।

ঈদের দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮ টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইমামতি করেছেন, মসজিদের সহকারী ইমাম হাফেজ মাওলানা মো. আনাছ।

তৃতীয় জামাত সকাল ১০ টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে, ইমামতি করেন, সহকারী ইমাম মুফতি মো. এমদাদ উল্যাহ্।

প্রত্যেক জামায়াতে মুসল্লিদের উপচেপড়া ভীড় ছিলো। বিশেষ করে সকাল সাড়ে ৬টার জামায়াতে মসজিদের নিচতলা, দ্বিতীয় তলা ও মাঠ পর্যন্ত মুসল্লিদের কাতার ছড়িয়ে পড়ে। প্রথম জামায়াতে নামাজ পড়তে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা ফজর পড়ে জায়নামাজ নিয়ে মসজিদে আসতে শুরু করে সাড়ে ৫টার মধ্যেই মসজিদের নিচতলা ও দ্বিতীয় তলা কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে পড়ে। ৬টায় বয়ান শুরু করেন মসজিদের খতিব ও পেশ ইমাম মুফতি মোহাম্মদ আব্দুর রউফ।

প্রতিটি জামাতে দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ শেষে ফিলিস্তিনসহ সমগ্র মুসলিম উম্মাহ, দেশ ও জাতির কল্যাণ, সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।