• ঢাকা
  • শনিবার, ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১০ মে, ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট : ১০ মে, ২০২৪

হাজীগঞ্জ স্বর্ণকলি হাই স্কুলের পরিচালক আকবর মৃধার স্মরণে শোকসভা

অনলাইন ডেস্ক
[sharethis-inline-buttons]
ছবি-নতুনেরকথা।

হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন স্বর্ণকলি কেজি এন্ড হাই স্কুলের পরিচালক মরহুম আকবর হোসেন মৃধার স্মরণে শোকসভা ও তাঁর আত্মার মাগফেরাত কামনায় মিলাদ ও দোয়ার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৯ এপ্রিল) বেলা ১১টায় স্কুলের হলরুমে অনুষ্ঠিত দোয়া ও মোনাজাতের পূর্বে মরহুমের স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন, শোকসভার সভাপতি ও স্কুলের পরিচালক মো. তাজুল ইসলাম।

এ সময় মরহুম আকবর হোসেন মৃধার স্মৃতিচারণকরে আরও বক্তব্য দেন, স্কুলের পরিচালক জহিরুল ইসলাম বাবুল, মো. আবুল হাসেম, মো. মোস্তফা কামাল ও মো. শহীদুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক মো. মহিবুর রহমান বিএসসি, সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. আলী আশ্রাফ, মরহুমের পরিবারের পক্ষে সাজ্জাদ রশিদ ডেবিড প্রমুখ।

স্কুলের আয়োজনে অনুষ্ঠিত স্মৃতিচারণ বক্তব্য শেষে মরহুমের মাগফেরাত এবং স্কুলসহ দেশ ও জাতীর সমৃদ্ধি কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করেন, টোরাগড় পূর্বপাড়া হাজী রহিম উদ্দিন জামে মসজিদের খতিব ও পেশ ইমাম মাওলানা বিএম মাহ্দী। এর আগে পবিত্র কোরআন মাজিদ থেকে তেলওয়াত ও মিলাদ পরিচালনা করেন, স্কুলের সহকারী শিক্ষক মাও. শাহীন বিন সাঈদ।

অনুষ্ঠানে স্কুলের পরিচালক কাজী মনির হোসেন, মিজানুর রহমান দুলাল, কাজী আব্দুল মফিদ, শাহজাহান তালুকদার, জামাল হোসেন মিয়াজী, মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্, মো. কুদ্দুছুর রহমান, মো. মনির হোসেন খন্দকার, হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক মো. আব্দুর রব, মো. এমরান হোসেন, পারভীন আক্তার, মো. জসিম উদ্দিন, জান্নাতুল ফেরদৌস রুপা ও ছামিয়া সেলিম উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় কেজি স্কুল শাখার সহকারী শিক্ষক নিলুফা ইয়াছমিন, শিরিন আক্তার, হাওয়া আক্তার, ঝুমু আক্তারসহ মরহুম আকবর হোসেন মৃধার পরিবারেরর সদস্য স্কুলের অন্যান্য শিক্ষক-কমর্চারী ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার (৪ মে) রাত সাড়ে ৯টার দিকে আকবর হোসেন মৃধা হৃদরোগজনিত কারণে হাজীগঞ্জ বাজারস্থ একটি বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

মরহুম আকবর হোসেন মৃধা জীবদ্দশায় ব্যবসা ও ঠিকাদারী পেশার পাশাপাশি তিনি রাজনীতি, সামাজিক ও মানবিক কাজের সাথে জড়িত ছিলেন। তিনি পৌরসভাধীন ৭নং ওয়ার্ড টোরাগড় গ্রামের মৃধা বাড়ির মরহুম মো. হাবিব উল্যাহর ছোট ছেলে। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলেসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

 

Sharing is caring!

[sharethis-inline-buttons]

আরও পড়ুন

  • সারা দেশ এর আরও খবর
error: Content is protected !!