ঢাকা ০৬:৩৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক ব্যর্থ : বিশ্বাস ঘাতকতার অভিযোগে৫ কর্মকর্তা মৃত্যুদণ্ড!

  • আপডেট: ০২:৪০:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০১৯
  • ১০

অনলাইন ডেস্ক:

ভিয়েতনামে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক ব্যর্থ হওয়ায় উত্তর কোরিয়ার বিশেষ দূতসহ পাঁচ শীর্ষ কর্মকর্তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছেন কিম জং উন।

দক্ষিণ কোরিয়ার একটি সংবাদপত্রের বরাত দিয়ে এমনটাই দাবি করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদপত্র চুসান ইলবো শুক্রবার এ খবর প্রকাশ করে।

এতে বলা হয়, হ্যানয়ে ট্রাম্পের সঙ্গে কিমের বৈঠক ব্যর্থ হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্রে দেশটির বিশেষ দূত কিম হায়ক চোল এবং চার শীর্ষ কর্মকর্তাকে ফায়ারিং স্কোয়াডের মাধ্যমে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।

হ্যানয়ের বৈঠকের গ্রাউন্ড ওয়ার্কের দায়িত্বে ছিলেন কিম হায়ক চোল। ভিয়েতনামে যেতে কিমের সঙ্গে ট্রেন সফরে তিনিও ছিলেন।

বৈঠকের প্রস্তুতিমূলক সমঝোতায় এগিয়ে থাকলেও মূল বৈঠক থেকে খালি হাতে ফিরতে হয় উত্তর কোরিয়াকে। এতে ‘রাষ্ট্রের শীর্ষ নেতার সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতার’ অভিযোগ তুলে তাকে হত্যা করা হয়।

ফেব্রুয়ারিতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার বিনিময়ে পিয়ংইয়ংয়ের পরমাণু কর্মসূচি প্রত্যাহার নিয়ে ঐকমত্যে পৌঁছাতে পারেননি ট্রাম্প এবং কিম। এটিকে ব্যর্থতা হিসেবেই দেখছেন কিম।

কিম হায়কের সঙ্গে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া বাকি চারজনের নাম-পরিচয়ের বিষয়ে প্রতিবেদনে কিছু জানানো হয়নি।

হ্যানয়ের বৈঠকে ভুল করার জন্য কিম জং উনের দোভাষী শিন হে ইয়ং-কে জেলে বন্দি করা হয়েছে বলেও দাবি করেছে দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদপত্রটি।

যদিও এই খবর সম্পর্কে কোনো ধরনের মন্তব্য করতে চায়নি উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্কের দায়িত্ব থাকা দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা। তবে উত্তর কোরিয়ার মৃত্যুদণ্ডের বিষয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার দেওয়া নানা খবর পরে অসত্য বলে প্রমাণিত হয়েছে।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম এমপি’র ঈদ শুভেচ্ছা

ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক ব্যর্থ : বিশ্বাস ঘাতকতার অভিযোগে৫ কর্মকর্তা মৃত্যুদণ্ড!

আপডেট: ০২:৪০:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক:

ভিয়েতনামে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক ব্যর্থ হওয়ায় উত্তর কোরিয়ার বিশেষ দূতসহ পাঁচ শীর্ষ কর্মকর্তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছেন কিম জং উন।

দক্ষিণ কোরিয়ার একটি সংবাদপত্রের বরাত দিয়ে এমনটাই দাবি করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদপত্র চুসান ইলবো শুক্রবার এ খবর প্রকাশ করে।

এতে বলা হয়, হ্যানয়ে ট্রাম্পের সঙ্গে কিমের বৈঠক ব্যর্থ হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্রে দেশটির বিশেষ দূত কিম হায়ক চোল এবং চার শীর্ষ কর্মকর্তাকে ফায়ারিং স্কোয়াডের মাধ্যমে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।

হ্যানয়ের বৈঠকের গ্রাউন্ড ওয়ার্কের দায়িত্বে ছিলেন কিম হায়ক চোল। ভিয়েতনামে যেতে কিমের সঙ্গে ট্রেন সফরে তিনিও ছিলেন।

বৈঠকের প্রস্তুতিমূলক সমঝোতায় এগিয়ে থাকলেও মূল বৈঠক থেকে খালি হাতে ফিরতে হয় উত্তর কোরিয়াকে। এতে ‘রাষ্ট্রের শীর্ষ নেতার সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতার’ অভিযোগ তুলে তাকে হত্যা করা হয়।

ফেব্রুয়ারিতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার বিনিময়ে পিয়ংইয়ংয়ের পরমাণু কর্মসূচি প্রত্যাহার নিয়ে ঐকমত্যে পৌঁছাতে পারেননি ট্রাম্প এবং কিম। এটিকে ব্যর্থতা হিসেবেই দেখছেন কিম।

কিম হায়কের সঙ্গে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া বাকি চারজনের নাম-পরিচয়ের বিষয়ে প্রতিবেদনে কিছু জানানো হয়নি।

হ্যানয়ের বৈঠকে ভুল করার জন্য কিম জং উনের দোভাষী শিন হে ইয়ং-কে জেলে বন্দি করা হয়েছে বলেও দাবি করেছে দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদপত্রটি।

যদিও এই খবর সম্পর্কে কোনো ধরনের মন্তব্য করতে চায়নি উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্কের দায়িত্ব থাকা দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা। তবে উত্তর কোরিয়ার মৃত্যুদণ্ডের বিষয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার দেওয়া নানা খবর পরে অসত্য বলে প্রমাণিত হয়েছে।