ঢাকা ০৬:১৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে মাহবুবুর রহমান টুটুলকে দেখতে চায় তৃণমূল

  • আপডেট: ০৬:৫০:০৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০১৯

গাজী মোঃ মহসিন॥
চাঁদপুর সদর উপজেলার ১নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সীকে দেখতে চায় তৃনমূলের নেতাকর্মীরা। আওয়ামীলীগ ,যুবলীগ, ছাত্রলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ ও আওয়ামীলীগের রাজপথের নেতাকর্মীদের মূখে মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সীর নাম বলতে শুনা যায়। আসন্ন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মলনকে ঘিরে এখন পর্যন্ত কোন প্রার্থীর নাম না শুনা গেলও তৃনমূল নেতাকর্মীদের প্রিয় মুখ মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সীকে নেতৃত্বে দেখতে চায় তৃনমূল ও প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ।

নেতা মূখে মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সী উক্ত ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড নুরুল্লাপুর গ্রামের আলহাজ্ব মোঃ মোহাম্মদ হোসেন মুন্সীর ছেলে। পরিবারটি আওয়ামীলীগের পরিবার বলে এলাকায় বেশ পরিচিত। সে সুবাদে মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সী স্কুল জীবন থেকে ছাত্র রাজনৈতির সাথে যুক্ত থেকে ১৯৮২ সালে ঢাকা বাসবো থানা ছাত্রলীগের সম্মানিত সদস্য ছিলেন। ২০০৮ সাল থেকে ২০১৩ পর্যন্ত তিনি তার ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড নুরুল্লাপুর আওয়ামীলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি নুরুল্লাপুর মোহাম্মদ হোসেন আদর্শ কিন্ডারগার্টেনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি এবং কল্যান্দী নুরুল্লাপুর চৌরাস্তা বাইতুল আমান জামে মসজিদের সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

এই ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ ,যুবলীগ, ছাত্রলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ ও আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা বলেন, মানুষ এখন উন্নয়ন চায়। তাই সরকারের উন্নয়নকে সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে ও দলের স্বার্থে স্বচ্ছ ও বিচক্ষণ ব্যক্তি আওয়ামীলীগ নেতা মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সীকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি অথবা সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালনের সুযোগ করে দেবেন বলে চাঁদপুর-৩ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী আলহাজ্ব ডা: দীপু মনি এবং জেলা ও উপজেলা আ’লীগের দলীয় নেতৃবৃন্দের প্রতি বিশ্বাস করেন।

এ ব্যাপারে আ’লীগ নেতা মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি ব্যক্তিগত স্বার্থ অর্জন বা ব্যক্তির নির্দেশে রাজনীতি বিশ্বাসী না। আমি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী, বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের আদর্শে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একজন কর্মী হিসেবে রাজনীতি করি। আমি রাজনীতি করি নারী নেতৃত্বের অহংকার, দেশের প্রথম নারী শিক্ষা মন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি আপার আদর্শ ও ভালোবাসা নিয়ে। দলের সাংগঠনিক সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে দীর্ঘদিন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সংগঠনের সাথে কাজ করেছি নিঃস্বার্থে। যদি ইউনিয়ন যুবলীগ ও আওয়ামীলীগ সংগঠনে থেকে দীর্ঘদিন দলের জন্য কাজ করে থাকি তাহলে দল আমাকে মূল্যায়ন করবে বলে বিশ্বাস করি। আমি দলের দুর্দিনের কান্ডারী হিসেবে দলীয় নেতাকর্মীরা ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে আমাকে মূল্যায়ন করবে এবং চাঁদপুর-৩ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য ও শিক্ষামন্ত্রী আলহাজ্ব ডা: দীপু মনি এবং জেলা ও উপজেলা আ’লীগের দলীয় নেতৃবৃন্দের কাছে দোয়া ও সমর্থন কামনা করছি।

ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডে খোঁজখবর নিয়ে জানা যায়, মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সী সারা জীবন আওয়ামী রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থেকে তিনি সাংগঠনিক ভাবে সংগঠনকে এগিয়ে দেবার সহযোগিতা করে চলেছেন। তিনি জাতীয় সংসদ ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে সফলতার সহিত দায়িত্ব পালন করেন। তাই আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ওনাকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অথবা সাধারন সম্পাদকে হিসেবে দেখতে চায়।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

গরু-ছাগলে ভরে গেছে হাট, তবে নেই ক্রেতা

বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে মাহবুবুর রহমান টুটুলকে দেখতে চায় তৃণমূল

আপডেট: ০৬:৫০:০৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০১৯

গাজী মোঃ মহসিন॥
চাঁদপুর সদর উপজেলার ১নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সীকে দেখতে চায় তৃনমূলের নেতাকর্মীরা। আওয়ামীলীগ ,যুবলীগ, ছাত্রলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ ও আওয়ামীলীগের রাজপথের নেতাকর্মীদের মূখে মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সীর নাম বলতে শুনা যায়। আসন্ন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মলনকে ঘিরে এখন পর্যন্ত কোন প্রার্থীর নাম না শুনা গেলও তৃনমূল নেতাকর্মীদের প্রিয় মুখ মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সীকে নেতৃত্বে দেখতে চায় তৃনমূল ও প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ।

নেতা মূখে মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সী উক্ত ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড নুরুল্লাপুর গ্রামের আলহাজ্ব মোঃ মোহাম্মদ হোসেন মুন্সীর ছেলে। পরিবারটি আওয়ামীলীগের পরিবার বলে এলাকায় বেশ পরিচিত। সে সুবাদে মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সী স্কুল জীবন থেকে ছাত্র রাজনৈতির সাথে যুক্ত থেকে ১৯৮২ সালে ঢাকা বাসবো থানা ছাত্রলীগের সম্মানিত সদস্য ছিলেন। ২০০৮ সাল থেকে ২০১৩ পর্যন্ত তিনি তার ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড নুরুল্লাপুর আওয়ামীলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি নুরুল্লাপুর মোহাম্মদ হোসেন আদর্শ কিন্ডারগার্টেনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি এবং কল্যান্দী নুরুল্লাপুর চৌরাস্তা বাইতুল আমান জামে মসজিদের সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

এই ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ ,যুবলীগ, ছাত্রলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ ও আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা বলেন, মানুষ এখন উন্নয়ন চায়। তাই সরকারের উন্নয়নকে সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে ও দলের স্বার্থে স্বচ্ছ ও বিচক্ষণ ব্যক্তি আওয়ামীলীগ নেতা মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সীকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি অথবা সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালনের সুযোগ করে দেবেন বলে চাঁদপুর-৩ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী আলহাজ্ব ডা: দীপু মনি এবং জেলা ও উপজেলা আ’লীগের দলীয় নেতৃবৃন্দের প্রতি বিশ্বাস করেন।

এ ব্যাপারে আ’লীগ নেতা মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি ব্যক্তিগত স্বার্থ অর্জন বা ব্যক্তির নির্দেশে রাজনীতি বিশ্বাসী না। আমি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী, বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের আদর্শে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একজন কর্মী হিসেবে রাজনীতি করি। আমি রাজনীতি করি নারী নেতৃত্বের অহংকার, দেশের প্রথম নারী শিক্ষা মন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি আপার আদর্শ ও ভালোবাসা নিয়ে। দলের সাংগঠনিক সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে দীর্ঘদিন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সংগঠনের সাথে কাজ করেছি নিঃস্বার্থে। যদি ইউনিয়ন যুবলীগ ও আওয়ামীলীগ সংগঠনে থেকে দীর্ঘদিন দলের জন্য কাজ করে থাকি তাহলে দল আমাকে মূল্যায়ন করবে বলে বিশ্বাস করি। আমি দলের দুর্দিনের কান্ডারী হিসেবে দলীয় নেতাকর্মীরা ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে আমাকে মূল্যায়ন করবে এবং চাঁদপুর-৩ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য ও শিক্ষামন্ত্রী আলহাজ্ব ডা: দীপু মনি এবং জেলা ও উপজেলা আ’লীগের দলীয় নেতৃবৃন্দের কাছে দোয়া ও সমর্থন কামনা করছি।

ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডে খোঁজখবর নিয়ে জানা যায়, মাহবুবুর রহমান টুটুল মুন্সী সারা জীবন আওয়ামী রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থেকে তিনি সাংগঠনিক ভাবে সংগঠনকে এগিয়ে দেবার সহযোগিতা করে চলেছেন। তিনি জাতীয় সংসদ ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে সফলতার সহিত দায়িত্ব পালন করেন। তাই আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ওনাকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অথবা সাধারন সম্পাদকে হিসেবে দেখতে চায়।