ঢাকা ০৮:২৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাজীগঞ্জে প্রেমিক যুগলকে আটকে রেখে মুক্তিপন আদায়

  • আপডেট: ০৪:৫৭:১৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ অগাস্ট ২০১৯

স্টাফ রিপোর্টার॥
হাজীগঞ্জে প্রেমিক যুগলকে আটকে রেখে মুক্তিপন আদায় করার খবর পাওয়া গেছে। ঘটনাটি গত ২আগষ্ট শুক্রবার রাতে উপজেলার ৭নং বড়কুল পশ্চিম ইউনিয়নে ঘটেছে।

ঘটনার বিবরনে জানা যায়, ফরিদগঞ্জ উপজেলার ২নং বালিথুবা ইউনিয়নের বালিথুবা গ্রামের মুন্সি বাড়ির জৈনক যুবক ও একই গ্রামের বেপারী বাড়ির জৈনক যুবতী সিএনজি নিয়ে হাজীগঞ্জে গুরতে আসে। গুরার একপর্যায়ে নাটেহরা গ্রামে অবস্থানকালে বাফনীছোঁয়া গ্রামের হাজী বাড়ির সিরাজুল ইসলামের ছেলে মহিনউদ্দিন নামের যুবকের নেতৃত্বে একদল বখাটেরা ওই প্রেমিক যুগলকে (কোন ধরনের অপরাধ ছাড়াই) আটক করেন। পরে ওই প্রেমিক যুগলের সাথে মহিন এবং তার দলবল দীর্ঘ সময় দেন দরবার করে তাদের কাছ থেকে ১৬ হাজার টাকা আদায় করার পর রাত ১টায় প্রেমিক যুবক এর এক নিকটআত্মীয় রামচন্দ্রপুর গ্রামের গাজী বাড়ির জৈনক ব্যক্তির বাড়িতে রাত্রিযাপন করার জন্য রেখে আসেন।

ঘটনার দিন রাত দেড়টায় প্রেমিক যুবকের পিতা ওই আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়ে তার ছেলে ও মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে যায়। এ ঘটনাটি জানাজানি না করার জন্য মহিনসহ তার সাঙ্গুপাঙ্গুরা ভয়ভীতি দেখিয়েছেন বলে স্থানীয় একটি সূত্রে জানাগেছে।

এ বিষয়ে মহিন জানান, ঘটনাটি সত্য, তবে মুক্তিপন আদায়ের বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

হাজীগঞ্জে প্রেমিক যুগলকে আটকে রেখে মুক্তিপন আদায়

আপডেট: ০৪:৫৭:১৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ অগাস্ট ২০১৯

স্টাফ রিপোর্টার॥
হাজীগঞ্জে প্রেমিক যুগলকে আটকে রেখে মুক্তিপন আদায় করার খবর পাওয়া গেছে। ঘটনাটি গত ২আগষ্ট শুক্রবার রাতে উপজেলার ৭নং বড়কুল পশ্চিম ইউনিয়নে ঘটেছে।

ঘটনার বিবরনে জানা যায়, ফরিদগঞ্জ উপজেলার ২নং বালিথুবা ইউনিয়নের বালিথুবা গ্রামের মুন্সি বাড়ির জৈনক যুবক ও একই গ্রামের বেপারী বাড়ির জৈনক যুবতী সিএনজি নিয়ে হাজীগঞ্জে গুরতে আসে। গুরার একপর্যায়ে নাটেহরা গ্রামে অবস্থানকালে বাফনীছোঁয়া গ্রামের হাজী বাড়ির সিরাজুল ইসলামের ছেলে মহিনউদ্দিন নামের যুবকের নেতৃত্বে একদল বখাটেরা ওই প্রেমিক যুগলকে (কোন ধরনের অপরাধ ছাড়াই) আটক করেন। পরে ওই প্রেমিক যুগলের সাথে মহিন এবং তার দলবল দীর্ঘ সময় দেন দরবার করে তাদের কাছ থেকে ১৬ হাজার টাকা আদায় করার পর রাত ১টায় প্রেমিক যুবক এর এক নিকটআত্মীয় রামচন্দ্রপুর গ্রামের গাজী বাড়ির জৈনক ব্যক্তির বাড়িতে রাত্রিযাপন করার জন্য রেখে আসেন।

ঘটনার দিন রাত দেড়টায় প্রেমিক যুবকের পিতা ওই আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়ে তার ছেলে ও মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে যায়। এ ঘটনাটি জানাজানি না করার জন্য মহিনসহ তার সাঙ্গুপাঙ্গুরা ভয়ভীতি দেখিয়েছেন বলে স্থানীয় একটি সূত্রে জানাগেছে।

এ বিষয়ে মহিন জানান, ঘটনাটি সত্য, তবে মুক্তিপন আদায়ের বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা।