ঢাকা ০৯:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

২২ হেলিকপ্টার ও ৫০০ পুলিশের রুদ্ধ অভিযানে আটক দুর্ধর্ষ মাদক সম্রাট

  • আপডেট: ০৬:১৬:৩৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১

যৌথ অভিযানে গ্রেফতার দাইরো আন্তোনিও উসুগা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

কলম্বিয়ায় যে মাদক ব্যবসায়ীকে বহুদিন ধরে খোঁজা হচ্ছিল এবং যে দেশটির সবচেয়ে বড় অপরাধী চক্রের প্রধান, সেই মাদক সম্রাটকে অবশেষে ধরতে সক্ষম হয়েছে দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

শনিবার ২২ হেলিকপ্টার নিয়ে ৫০০ পুলিশ সদস্যের অভিযানে গ্রেফতার হন তিনি। যৌথ অভিযানে দাইরো আন্তোনিও উসুগাকে গ্রেফতার করা হয়, যিনি অ্যাতোনিয়েল নামেই বেশি পরিচিত।

ধারণা করা হয়ে যে তিনি সহিংস ক্লান দ্যেল গলফো গোষ্ঠীর প্রধান, যেটি ঘন জঙ্গলের মধ্য দিয়ে কোকেন পাচারের বড় পথগুলো নিয়ন্ত্রণ করে।

কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভান ডুকে তাকে গ্রেফতারের ঘটনাকে পাবলো এসকোবারের পতনের সঙ্গে তুলনা করেছেন। ১৯৯৩ সালে পুলিশের গুলিতে নিহত হন কলম্বিয়ার কুখ্যাত এই মাদক সম্রাট।

প্রেসিডেন্ট ইভান ডুকে বলেন, ‘‘আমাদের দেশে চলতি শতকে মাদকপাচারকারীদের উপর সবচেয়ে বড় আঘাত এটি।

তিনি বলেন, অ্যাতোনিয়েল শুধু বিশ্বের সবচেয়ে বড় ত্রাসসৃষ্টিকারী মাদক সম্রাটই নয়, একজন হত্যাকারীও যে পুলিশ, সেনা সদস্য এবং স্থানীয় অ্যাক্টিভিস্টদের খুন করেছে।

কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, ‘‘তাকে গ্রেফতারে দেশটির সামরিক ইতিহাসে জঙ্গলে সবচেয়ে বড় অভিযান পরিচালনা করা হয়।”

উসুগার মাদকপাচারকারী দলের অন্য সদস্যদের আত্মসমর্পণের আহ্বানও জানিয়েছেন ডুকে। অন্যথায়, তাদের উপর আইনের পুরোপুরি প্রয়োগ করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

মাদক পাচার, হত্যা, চাঁদাবাজি, অপহরণসহ নানা অভিযোগ রয়েছে কলম্বিয়ার এই মাদক সম্রাটের বিরুদ্ধে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ড্রাগ এনফোর্সমেন্ট কর্তৃপক্ষের ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ তালিকায় রয়েছেন তিনি।

উসুগাকে গ্রেফতার বা বিচারের মুখোমুখি করার উপযুক্ত তথ্য কেউ দিলে তাকে ৫০ লাখ ডলার পুরস্কার দেয়ার ঘোষণা ২০০৯ সালে দিয়েছিল মার্কিন কর্তৃপক্ষ।

৫০ বছর বয়সি উসুগার জন্ম কলম্বিয়ার নেকোক্লিতে। প্রত্যন্ত অঞ্চলের এক পরিবারের নয় সন্তানের মধ্যে সপ্তম তিনি। আঠারো বছর বয়সে একটি মার্কসবাদী গেরিলা গোষ্ঠীর সদস্য হয়েছিলেন তিনি। পরবর্তীতে অবশ্য সেটি ভেঙে যায়।

নব্বইয়ের দশকে কৃষকদেরকে গেরিলাদের কাছ থেকে রক্ষায় ভূমিকা পালন করতে দেখা গেছে উসুগাকে। সেসময় মাদক পাচারেও জড়িয়ে পড়েন তিনি।

তাকে গ্রেফতারে এর আগেও একাধিক অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। তবে সাফল্য এসেছে শনিবার। ২২ হেলিকপ্টার নিয়ে ৫০০ পুলিশ সদস্যের অভিযানে গ্রেফতার হন তিনি।

সূত্র: ডয়েচে ভেলে।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

ধর্ষণের মামলায় মাওলানা নাছির পাটোয়ারীকে আটক করলো র‌্যাব

২২ হেলিকপ্টার ও ৫০০ পুলিশের রুদ্ধ অভিযানে আটক দুর্ধর্ষ মাদক সম্রাট

আপডেট: ০৬:১৬:৩৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

কলম্বিয়ায় যে মাদক ব্যবসায়ীকে বহুদিন ধরে খোঁজা হচ্ছিল এবং যে দেশটির সবচেয়ে বড় অপরাধী চক্রের প্রধান, সেই মাদক সম্রাটকে অবশেষে ধরতে সক্ষম হয়েছে দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

শনিবার ২২ হেলিকপ্টার নিয়ে ৫০০ পুলিশ সদস্যের অভিযানে গ্রেফতার হন তিনি। যৌথ অভিযানে দাইরো আন্তোনিও উসুগাকে গ্রেফতার করা হয়, যিনি অ্যাতোনিয়েল নামেই বেশি পরিচিত।

ধারণা করা হয়ে যে তিনি সহিংস ক্লান দ্যেল গলফো গোষ্ঠীর প্রধান, যেটি ঘন জঙ্গলের মধ্য দিয়ে কোকেন পাচারের বড় পথগুলো নিয়ন্ত্রণ করে।

কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভান ডুকে তাকে গ্রেফতারের ঘটনাকে পাবলো এসকোবারের পতনের সঙ্গে তুলনা করেছেন। ১৯৯৩ সালে পুলিশের গুলিতে নিহত হন কলম্বিয়ার কুখ্যাত এই মাদক সম্রাট।

প্রেসিডেন্ট ইভান ডুকে বলেন, ‘‘আমাদের দেশে চলতি শতকে মাদকপাচারকারীদের উপর সবচেয়ে বড় আঘাত এটি।

তিনি বলেন, অ্যাতোনিয়েল শুধু বিশ্বের সবচেয়ে বড় ত্রাসসৃষ্টিকারী মাদক সম্রাটই নয়, একজন হত্যাকারীও যে পুলিশ, সেনা সদস্য এবং স্থানীয় অ্যাক্টিভিস্টদের খুন করেছে।

কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, ‘‘তাকে গ্রেফতারে দেশটির সামরিক ইতিহাসে জঙ্গলে সবচেয়ে বড় অভিযান পরিচালনা করা হয়।”

উসুগার মাদকপাচারকারী দলের অন্য সদস্যদের আত্মসমর্পণের আহ্বানও জানিয়েছেন ডুকে। অন্যথায়, তাদের উপর আইনের পুরোপুরি প্রয়োগ করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

মাদক পাচার, হত্যা, চাঁদাবাজি, অপহরণসহ নানা অভিযোগ রয়েছে কলম্বিয়ার এই মাদক সম্রাটের বিরুদ্ধে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ড্রাগ এনফোর্সমেন্ট কর্তৃপক্ষের ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ তালিকায় রয়েছেন তিনি।

উসুগাকে গ্রেফতার বা বিচারের মুখোমুখি করার উপযুক্ত তথ্য কেউ দিলে তাকে ৫০ লাখ ডলার পুরস্কার দেয়ার ঘোষণা ২০০৯ সালে দিয়েছিল মার্কিন কর্তৃপক্ষ।

৫০ বছর বয়সি উসুগার জন্ম কলম্বিয়ার নেকোক্লিতে। প্রত্যন্ত অঞ্চলের এক পরিবারের নয় সন্তানের মধ্যে সপ্তম তিনি। আঠারো বছর বয়সে একটি মার্কসবাদী গেরিলা গোষ্ঠীর সদস্য হয়েছিলেন তিনি। পরবর্তীতে অবশ্য সেটি ভেঙে যায়।

নব্বইয়ের দশকে কৃষকদেরকে গেরিলাদের কাছ থেকে রক্ষায় ভূমিকা পালন করতে দেখা গেছে উসুগাকে। সেসময় মাদক পাচারেও জড়িয়ে পড়েন তিনি।

তাকে গ্রেফতারে এর আগেও একাধিক অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। তবে সাফল্য এসেছে শনিবার। ২২ হেলিকপ্টার নিয়ে ৫০০ পুলিশ সদস্যের অভিযানে গ্রেফতার হন তিনি।

সূত্র: ডয়েচে ভেলে।