• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩

কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ঢাবি শিক্ষক মতলবের মুহাম্মদ নুরে আলমের পিএইচডি অর্জন

অনলাইন ডেস্ক
[sharethis-inline-buttons]

অনলাইন ডেস্ক : সৌদি আরবের কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের শিক্ষক ও সহযোগী অধ্যাপক মুহাম্মদ নুরে আলম। বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা, সামাজিক বিজ্ঞান ও শিক্ষা গবেষণা ও ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদগুলোর বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে তিনিই প্রথম এ ডিগ্রি অর্জন করলেন।

মুহাম্মদ নুরে আলম ২০১৫ সালে সৌদি আরবের কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি গবেষণার সুযোগ পান। সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন তিনি। তার গবেষণার বিষয় ছিল, বাংলাদেশে ভাষা শিক্ষায় সমসাময়িক আরবির ব্যবহার।

 

মুহাম্মদ নুরে আলম ১৯৮০ সালের ১ মার্চ চাঁদপুর জেলার মতলব দক্ষিণ উপজেলার বাবুরপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মরহুম মাওলানা মো. আব্দুল হাই ও মাতার নাম মরহুমা মোসাম্মৎ শামসুন্নাহার।

 

মুহাম্মদ নুরে আলম বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীন ১৯৯৪ সালে দাখিল (এসএসসি সমমান) পাস করেন। ১৯৯৬ সালে আলিম (এইচএসসি) পরীক্ষায় কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হন তিনি। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগে ভর্তি হন। ২০০১ সালে প্রথম শ্রেণিতে দ্বিতীয় স্থান নিয়ে বিএ (অনার্স) ও ২০০২ সালে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান নিয়ে এমএ পাস করেন।

স্নাতক সম্মান পরীক্ষায় কৃতিত্বপূর্ণ ফলের জন্য তিনি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন মেধাবৃত্তি লাভ করেন। এমএ-তে নিজ বিভাগ ও কলা অনুষদের সব বিভাগের মধ্যে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অর্জন করায় পুরস্কার হিসেবে তিনি যথাক্রমে সৈয়দ আবেদ আলী ও বেগম আখতারা আবেদ আলী স্মারক স্বর্ণপদক ও কাজী নূরুস সোবহান স্মারক স্বর্ণপদক লাভ করেন।

 

২০০৮ সালে নিজ বিভাগে লেকচারার হিসেবে যোগদান করেন মুহাম্মদ নুরে আলম। পরবর্তী সময়ে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি পান। ২০১০ সালে একই বিভাগ থেকে আরবি উপভাষা বিষয়ে এমফিল ডিগ্রি লাভ করেন তিনি।

 

কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয় সৌদি আরবে প্রতিষ্ঠিত প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়। রাজধানী রিয়াদে অবস্থিত এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৪টি অনুষদ রয়েছে। এসব অনুষদের অধীন মোট ৭০ হাজার শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করছেন। যার মধ্যে ৯০টি দেশের প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে।

এ বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশি ৩৫ জন শিক্ষার্থীর পাশাপাশি ১৮ জন বাংলাদেশি শিক্ষকও রয়েছেন, যারা বিভিন্ন বিভাগে সুনামের সঙ্গে শিক্ষকতা করছেন। কয়েকজন বাংলাদেশি শিক্ষক বিভিন্ন বিষয়ে গবেষণা ও উদ্ভাবনের জন্য পুরস্কারও পেয়েছেন।

Sharing is caring!

[sharethis-inline-buttons]

আরও পড়ুন

  • বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এর আরও খবর
error: Content is protected !!