• ঢাকা
  • সোমবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ৭ আগস্ট, ২০২২
সর্বশেষ আপডেট : ৭ আগস্ট, ২০২২

কচুয়ায় গণধর্ষণের শিকার ৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থী॥আটক ১

অনলাইন ডেস্ক
[sharethis-inline-buttons]
ফাইল ফটো।

ইসমাইল হোসেন বিপ্লব,কচুয়াঃ
কচুয়ায় সপ্তর শ্রেণির এক মাদ্রাসার ছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে রাছেল (৩০) এক ব্যক্তিকে আটক করেছে কচুয়া থানা পুলিশ।

ভিকটিমের পিতা কচুয়া উত্তর ইউনিয়নের তেতৈয়া গ্রামের অধিবাসী মুহিব উল্লাহ জানান, কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আমার এক নাতনীকে শুক্রবার দুপুরে খাবার দিয়ে সিএনজি যোগে বাড়ি ফেরার পথিমধ্যে ৩ ব্যাক্তি ওই সিএনজিতে উঠে বিভিন্ন ভয়ভীতির মুখে আমার মেয়েকে জিম্মি করে খিড্ডা বাজারের পশ্চিম পাশে রোকসানা বেগমের পরিত্যাক্ত ঘরে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে তার পরনের উড়না দিয়ে মুখ বেঁধে পালাক্রমে ধর্ষণ করে তারা পালিয়ে যায়। মেয়েটির জ্ঞান ফিরে সে বাড়িতে এসে আমাদেরকে বিষয়টি অবগত করে।

এ ঘটনায় স্থানীয়রা রফাদফা করতে ব্যার্থ হলে রবিবার ভিকটিম ও তার পিতা কচুয়া থানা পুলিশের শরনাপন্ন হয়।

পুলিশ ভিকটিমের দেওয়া তথ্যানুসারে তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে তেতৈয়া গ্রামের মাদ্রাসা বাড়ির বাকি মিয়ার ছেলে ধর্ষক রাছেল কে আটক করে। অপর দুই ধর্ষক একই গ্রামের মাদ্রাসা বাড়ির নুরুল ইসলামের ছেলে মোহাম্মদ উল্লাহ (৩৫) ও একই গ্রামের খামার বাড়ির আবু মিয়ার ছেলে মো. হাছান (২৫) এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ  (ওসি) মো. মহিউদ্দিন জানান, ভিকটিমের দেওয়া তথ্যানুসারে আমরা রাছেলকে আটক করেছি।  সোমবার ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা করানো’সহ তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হবে। এ ব্যাপারে কচুয়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Sharing is caring!

[sharethis-inline-buttons]

আরও পড়ুন

  • কচুয়া এর আরও খবর