ঢাকা ০৬:৩২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রীমাকে ধর্ষণের পর হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

  • আপডেট: ০১:০৯:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯

নতুনেরকথা অনলাইন ডেস্কঃ

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী স্মৃতি আক্তার রীমাকে ধর্ষণের পর হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। আজ শনিবার হোসেনপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে ঘন্টাব্যাপী এ কর্মসূচি পালিত হয়। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি, শিক্ষক ও ছাত্রীরা এ কর্মসূচির আয়োজন করে।

দুপুরের তীব্র খরতাপ উপেক্ষা করে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষক, স্মৃতির সহপাঠী ও পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শত শত ছাত্র-ছাত্রী মানববন্ধনে অংশ নেয়। তারা স্মৃতি আক্তার রীমার ধর্ষণ ও হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবি জানান। এ সময় বক্তব্য রাখেন হোসেনপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ সোহেল, বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কাজী আসমা বেগম, কিশোরগঞ্জ জেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. আফাজ উদ্দিন, হোসেনপুর সরকারি মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. জহির রায়হান, নিহত রীমার মা আঙ্গুরা খাতুন, ভাই মাসুদ মিয়া, সহপাঠী ফারিহা জাহান কেয়া, অন্তি বেগম প্রমুখ।

স্মৃতি আক্তার রীমা হোসেনপুর উপজেলার জামাইল গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের মেয়ে এবং হোসেনপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। গত ১৭ জুলাই রাতে পাকুন্দিয়া উপজেলার গান্দারচর গ্রামে নানার বাড়িতে বেড়াতে গেলে ধর্ষণ ও হত্যার শিকার হয়। শুক্রবার নিহতের মা আঙ্গুরা খাতুন বাদী হয়ে চারজনকে আসামি করে পাকুন্দিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। আসামিরা হল পাকুন্দিয়া উপজেলার চরফরাদী গ্রামের খুর্শিদ মিয়ার ছেলে জাহিদ মিয়া (২০), রুবেল মিয়ার ছেলে পিয়াস মিয়া (১৮), ফারুক মিয়ার ছেলে রুমান মিয়া (২০) এবং কফিল উদ্দিনের ছেলে রাজু মিয়া (১৮)।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

গরু-ছাগলে ভরে গেছে হাট, তবে নেই ক্রেতা

রীমাকে ধর্ষণের পর হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

আপডেট: ০১:০৯:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯

নতুনেরকথা অনলাইন ডেস্কঃ

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী স্মৃতি আক্তার রীমাকে ধর্ষণের পর হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। আজ শনিবার হোসেনপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে ঘন্টাব্যাপী এ কর্মসূচি পালিত হয়। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি, শিক্ষক ও ছাত্রীরা এ কর্মসূচির আয়োজন করে।

দুপুরের তীব্র খরতাপ উপেক্ষা করে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষক, স্মৃতির সহপাঠী ও পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শত শত ছাত্র-ছাত্রী মানববন্ধনে অংশ নেয়। তারা স্মৃতি আক্তার রীমার ধর্ষণ ও হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবি জানান। এ সময় বক্তব্য রাখেন হোসেনপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ সোহেল, বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কাজী আসমা বেগম, কিশোরগঞ্জ জেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. আফাজ উদ্দিন, হোসেনপুর সরকারি মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. জহির রায়হান, নিহত রীমার মা আঙ্গুরা খাতুন, ভাই মাসুদ মিয়া, সহপাঠী ফারিহা জাহান কেয়া, অন্তি বেগম প্রমুখ।

স্মৃতি আক্তার রীমা হোসেনপুর উপজেলার জামাইল গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের মেয়ে এবং হোসেনপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। গত ১৭ জুলাই রাতে পাকুন্দিয়া উপজেলার গান্দারচর গ্রামে নানার বাড়িতে বেড়াতে গেলে ধর্ষণ ও হত্যার শিকার হয়। শুক্রবার নিহতের মা আঙ্গুরা খাতুন বাদী হয়ে চারজনকে আসামি করে পাকুন্দিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। আসামিরা হল পাকুন্দিয়া উপজেলার চরফরাদী গ্রামের খুর্শিদ মিয়ার ছেলে জাহিদ মিয়া (২০), রুবেল মিয়ার ছেলে পিয়াস মিয়া (১৮), ফারুক মিয়ার ছেলে রুমান মিয়া (২০) এবং কফিল উদ্দিনের ছেলে রাজু মিয়া (১৮)।