ঢাকা ০৬:১৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাম্প্রদায়ীক সম্প্রীতি রক্ষায় ঐক্য গড়ে তোলার আহবান পুলিশের

  • আপডেট: ০৩:৪০:১৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১

হাজীগঞ্জে সাম্প্রতিক সময়ে ঘটে যাওয়া সহিংসতা বর্তমান প্রেক্ষাপটে মুসলিম, হিন্দু, খ্রিষ্টান, বৌদ্ধসহ সম্প্রীতি বন্ধনে হাজীগঞ্জ থানার আয়োজনে বিট পুলিশিং সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি সার্কেল) সোহেল মাহমুদ।

মো. জহির হোসেন॥
চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে সাম্প্রতিক সময়ে ঘটে যাওয়া সহিংসতা বর্তমান প্রোপটে মুসলিম, হিন্দু, খ্রিষ্টান, বৌদ্ধসহ সম্প্রীতি বন্ধনে হাজীগঞ্জ থানার আয়োজনে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে হাজীগঞ্জ পশ্চিম বাজারে ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষকে নিয়ে থানা পুলিশ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

বিট পুলিশিং সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাজীগঞ্জ (সার্কেল) সোহেল মাহমুদ (পিপিএম)।

বিট পুলিশিংয়ের সমাবেশে প্রধান অতিথি বলেন, আপনারা গুজবে কান দিবেন না। প্রতিবেশী হিসেবে সকল র্ধমের মানুষ এক ও অভিন্ন হয়ে থাকবে বলে আমার বিশ্বাস। আমরা মুসলমান হিসেবে সংখ্যালঘুদের জান-মাল আমাদের কাছে আমানত। যারা আমানতের খেয়ানত করবে তারা আল্লাহর দরবারে এ জন্য জবাব দিহি করতে হবে।

তিনি বলেন, ধর্মীয় বিবেদ সৃষ্টি করে এমন কিছু কোনভাবে সামাজিক যোগা-যোগ মাধ্যম (ফেইসবুক) পোস্ট করা যাবেনা। উস্কানিমূলক ও বিদ্বেষ মূলক কিছু লেখা যাবেনা। এতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

তিনি বলেন, গত ১৩ অক্টোবরের ঘটনায় অন্যায়ভাবে কাউকে আটক করা হচ্ছেনা। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে হামলাকারীদের সনাক্ত করে আসামী ধরা হচ্ছে।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুনুর রশিদ এর সভাপতিত্বে ও হাজীগঞ্জ প্রেসকাবের সাবেক সভাপতি মো. মহিউদ্দিন আল আজাদের পরিচালনায় এ সময় বক্তব্যে রাখেন, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা হারুনুর রশিদ মুন্সী, উপজেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক স্বপন কুমার পাল, শ্রী শ্রী রাজার লক্ষ্মী নারায়ণ জিউড় আখড়ার সভাপতি দ্বীলিপ কুমার সাহা, হাজীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মুন্সী মো. মনির, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সুমন তফদার প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লার নানুয়া দিঘির পাড় কোরআন শরীফ অবমননার ঘটনায় রাত ৮টায় হাজীগঞ্জ বাজারে একটি মিছিল বের করে সেই মিছিল থেকে হাজীগঞ্জ বাজার ও বিভিন্ন ইউনিয়নে মন্দিরে হামলা করা হয়। পুলিশ সাধারণ মানুষের জান-মালের নিরাপত্তায় ১০৯ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ১৫ রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকাগুলি ছোঁড়ে এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৪জন ও পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো ১জন মৃত্যুবরণ করেন। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ২টি ও ৮টি মন্দিরের সভাপতি বাদী হয়ে ৮টি মামলা দায়ের করে। মোট ১০টায় মামলায় আসামী করা হয়েছে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার লোককে। এসব মামলায় এখন পর্যন্ত ২৯জনকে আটক করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করে পুলিশ।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

বিএনপি-জাময়াতের নাশকতায় চাঁদপুরে পুলিশের ৭ মামলায় আসামী ৩ সহস্রাধীক

সাম্প্রদায়ীক সম্প্রীতি রক্ষায় ঐক্য গড়ে তোলার আহবান পুলিশের

আপডেট: ০৩:৪০:১৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১

মো. জহির হোসেন॥
চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে সাম্প্রতিক সময়ে ঘটে যাওয়া সহিংসতা বর্তমান প্রোপটে মুসলিম, হিন্দু, খ্রিষ্টান, বৌদ্ধসহ সম্প্রীতি বন্ধনে হাজীগঞ্জ থানার আয়োজনে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে হাজীগঞ্জ পশ্চিম বাজারে ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষকে নিয়ে থানা পুলিশ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

বিট পুলিশিং সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাজীগঞ্জ (সার্কেল) সোহেল মাহমুদ (পিপিএম)।

বিট পুলিশিংয়ের সমাবেশে প্রধান অতিথি বলেন, আপনারা গুজবে কান দিবেন না। প্রতিবেশী হিসেবে সকল র্ধমের মানুষ এক ও অভিন্ন হয়ে থাকবে বলে আমার বিশ্বাস। আমরা মুসলমান হিসেবে সংখ্যালঘুদের জান-মাল আমাদের কাছে আমানত। যারা আমানতের খেয়ানত করবে তারা আল্লাহর দরবারে এ জন্য জবাব দিহি করতে হবে।

তিনি বলেন, ধর্মীয় বিবেদ সৃষ্টি করে এমন কিছু কোনভাবে সামাজিক যোগা-যোগ মাধ্যম (ফেইসবুক) পোস্ট করা যাবেনা। উস্কানিমূলক ও বিদ্বেষ মূলক কিছু লেখা যাবেনা। এতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

তিনি বলেন, গত ১৩ অক্টোবরের ঘটনায় অন্যায়ভাবে কাউকে আটক করা হচ্ছেনা। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে হামলাকারীদের সনাক্ত করে আসামী ধরা হচ্ছে।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুনুর রশিদ এর সভাপতিত্বে ও হাজীগঞ্জ প্রেসকাবের সাবেক সভাপতি মো. মহিউদ্দিন আল আজাদের পরিচালনায় এ সময় বক্তব্যে রাখেন, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা হারুনুর রশিদ মুন্সী, উপজেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক স্বপন কুমার পাল, শ্রী শ্রী রাজার লক্ষ্মী নারায়ণ জিউড় আখড়ার সভাপতি দ্বীলিপ কুমার সাহা, হাজীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মুন্সী মো. মনির, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সুমন তফদার প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লার নানুয়া দিঘির পাড় কোরআন শরীফ অবমননার ঘটনায় রাত ৮টায় হাজীগঞ্জ বাজারে একটি মিছিল বের করে সেই মিছিল থেকে হাজীগঞ্জ বাজার ও বিভিন্ন ইউনিয়নে মন্দিরে হামলা করা হয়। পুলিশ সাধারণ মানুষের জান-মালের নিরাপত্তায় ১০৯ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ১৫ রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকাগুলি ছোঁড়ে এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৪জন ও পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো ১জন মৃত্যুবরণ করেন। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ২টি ও ৮টি মন্দিরের সভাপতি বাদী হয়ে ৮টি মামলা দায়ের করে। মোট ১০টায় মামলায় আসামী করা হয়েছে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার লোককে। এসব মামলায় এখন পর্যন্ত ২৯জনকে আটক করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করে পুলিশ।