ঢাকা ০৮:৪২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

১৪তম স্প্যান : দৃশ্যমান পদ্মা সেতুর ২১০০ মিটার

  • আপডেট: ০৬:০৯:৫৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ জুন ২০১৯
  • ১০

notunerkotha.com

আবহাওয়া ঠিক থাকা সাপেক্ষে আজ শুক্রবার বসানো হতে পারে পদ্মা সেতুর ৩সি স্প্যানটি। ১৪তম এই স্প্যানটি মাওয়া প্রান্তে ১৫ ও ১৬ নম্বর খুঁটিতে বসানো হলে দৃশ্যমান হবে পদ্মা সেতুর ২ হাজার ১০০ মিটার।

১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে স্প্যানটি গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে তিয়ান-ই ক্রেনে করে ১৫ ও ১৬ নম্বর খুঁটির কাছে নিয়ে রাখা হয়েছে। পদ্মা সেতুর সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রকৌশল সূত্রে জানা যায়, মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ৩ হাজার ৬০০ টন ধারণক্ষমতার ‘তিয়ান-ই’ ভাসমান ক্রেন ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে প্রতিটি স্প্যান বহন করে। এরপর বসানো হয় খুঁটির ওপর। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক প্রকৌশলী জানান, বৃহস্পতিবার কনস্ট্রাকশন এলাকায় আবহাওয়া ভালো না থাকায় স্প্যান রওনা দিতে দেরি হয়। স্প্যানটি ১৫ ও ১৬ নম্বর খুঁটির কাছে নিয়ে রাখা হয়েছে। খুঁটি এলাকায় ক্রেনটি ঠিকমতো বসানোর জন্য প্রয়োজনীয় ড্রেজিং করার পর শুক্রবার স্প্যান বসানো হতে পারে।

মাওয়ার দিকে মাঝ নদীতে ৩ নম্বর মডিউলের মধ্যে বসানো আছে দুটি স্প্যান। এবার সেগুলোর সঙ্গেই জোড়া দিয়ে বসানো হবে ১৪ নম্বর স্প্যান। ১৪ ও ১৫ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হবে স্প্যানটি। শেষ চারটি স্প্যান বসেছে খুব দ্রুত। কখনো ১০ দিন, কখনো ১৫ দিন বিরতিতে বসেছে এক একটি স্প্যান। এর আগে ২৫ মে সর্বশেষ ১৩তম স্প্যানটি বসানো হয়।

২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটির ওপর প্রথম স্প্যান, ২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি ৩৮ ও ৩৯ নম্বর পিলারের ওপর দ্বিতীয় স্প্যান, ১১ মার্চ ৩৯ ও ৪০ নম্বর পিলারের ওপর তৃতীয় স্প্যান, ১৩ মে ৪০ ও ৪১ নম্বর পিলারের ওপর চতুর্থ স্প্যান, ২৯ জুন ৪১ ও ৪২ নম্বর খুঁটির ওপর পঞ্চম স্প্যান, ২০১৯ সালের ২৩ জানুয়ারি ৩৬ ও ৩৭ নম্বর পিলারের ওপর ষষ্ঠ স্প্যান ও ২০ ফেব্রুয়ারি ৩৫ ও ৩৬ নম্বর পিলারের ওপর সপ্তম স্প্যান, মাওয়া প্রান্তের ৪ ও ৫ নম্বর খুঁটির ওপর অষ্টম স্প্যান, ২১ মার্চ জাজিরা প্রান্তে ৩৪ ও ৩৫ নম্বর খুঁটির ওপর নবম স্প্যান, ১০ এপ্রিল মাওয়া প্রান্তে ১৩ ও ১৪ নম্বর খুঁটির ওপর দশম স্প্যান, ২৩ এপ্রিল জাজিরার নাওডোবা প্রান্তে ৩৩ ও ৩৪ নম্বর খুঁটির ওপর ১১তম স্প্যান, ৬ মে জাজিরার নাওডোবা প্রান্তে ২০ ও ২১ নম্বর খুঁটির ওপর ১২তম স্প্যানটি বসানো হয়।

জানা গেছে, পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের মূল সেতুতে মোট ২৯৪টি পাইল আছে, যার মধ্যে নদীতে ২৬২টি পাইল। মূল সেতুর ২৯৪টি পাইলের মধ্যে এরই মধ্যে ২৪৭টি পাইলের কাজ শেষ হয়েছে। ২৯৪টি পাইলে মোট ৪২টি পিলার। সেতুতে মোট স্প্যান বসবে ৪১টি।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

১৪তম স্প্যান : দৃশ্যমান পদ্মা সেতুর ২১০০ মিটার

আপডেট: ০৬:০৯:৫৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ জুন ২০১৯

notunerkotha.com

আবহাওয়া ঠিক থাকা সাপেক্ষে আজ শুক্রবার বসানো হতে পারে পদ্মা সেতুর ৩সি স্প্যানটি। ১৪তম এই স্প্যানটি মাওয়া প্রান্তে ১৫ ও ১৬ নম্বর খুঁটিতে বসানো হলে দৃশ্যমান হবে পদ্মা সেতুর ২ হাজার ১০০ মিটার।

১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে স্প্যানটি গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে তিয়ান-ই ক্রেনে করে ১৫ ও ১৬ নম্বর খুঁটির কাছে নিয়ে রাখা হয়েছে। পদ্মা সেতুর সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রকৌশল সূত্রে জানা যায়, মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ৩ হাজার ৬০০ টন ধারণক্ষমতার ‘তিয়ান-ই’ ভাসমান ক্রেন ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে প্রতিটি স্প্যান বহন করে। এরপর বসানো হয় খুঁটির ওপর। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক প্রকৌশলী জানান, বৃহস্পতিবার কনস্ট্রাকশন এলাকায় আবহাওয়া ভালো না থাকায় স্প্যান রওনা দিতে দেরি হয়। স্প্যানটি ১৫ ও ১৬ নম্বর খুঁটির কাছে নিয়ে রাখা হয়েছে। খুঁটি এলাকায় ক্রেনটি ঠিকমতো বসানোর জন্য প্রয়োজনীয় ড্রেজিং করার পর শুক্রবার স্প্যান বসানো হতে পারে।

মাওয়ার দিকে মাঝ নদীতে ৩ নম্বর মডিউলের মধ্যে বসানো আছে দুটি স্প্যান। এবার সেগুলোর সঙ্গেই জোড়া দিয়ে বসানো হবে ১৪ নম্বর স্প্যান। ১৪ ও ১৫ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হবে স্প্যানটি। শেষ চারটি স্প্যান বসেছে খুব দ্রুত। কখনো ১০ দিন, কখনো ১৫ দিন বিরতিতে বসেছে এক একটি স্প্যান। এর আগে ২৫ মে সর্বশেষ ১৩তম স্প্যানটি বসানো হয়।

২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটির ওপর প্রথম স্প্যান, ২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি ৩৮ ও ৩৯ নম্বর পিলারের ওপর দ্বিতীয় স্প্যান, ১১ মার্চ ৩৯ ও ৪০ নম্বর পিলারের ওপর তৃতীয় স্প্যান, ১৩ মে ৪০ ও ৪১ নম্বর পিলারের ওপর চতুর্থ স্প্যান, ২৯ জুন ৪১ ও ৪২ নম্বর খুঁটির ওপর পঞ্চম স্প্যান, ২০১৯ সালের ২৩ জানুয়ারি ৩৬ ও ৩৭ নম্বর পিলারের ওপর ষষ্ঠ স্প্যান ও ২০ ফেব্রুয়ারি ৩৫ ও ৩৬ নম্বর পিলারের ওপর সপ্তম স্প্যান, মাওয়া প্রান্তের ৪ ও ৫ নম্বর খুঁটির ওপর অষ্টম স্প্যান, ২১ মার্চ জাজিরা প্রান্তে ৩৪ ও ৩৫ নম্বর খুঁটির ওপর নবম স্প্যান, ১০ এপ্রিল মাওয়া প্রান্তে ১৩ ও ১৪ নম্বর খুঁটির ওপর দশম স্প্যান, ২৩ এপ্রিল জাজিরার নাওডোবা প্রান্তে ৩৩ ও ৩৪ নম্বর খুঁটির ওপর ১১তম স্প্যান, ৬ মে জাজিরার নাওডোবা প্রান্তে ২০ ও ২১ নম্বর খুঁটির ওপর ১২তম স্প্যানটি বসানো হয়।

জানা গেছে, পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের মূল সেতুতে মোট ২৯৪টি পাইল আছে, যার মধ্যে নদীতে ২৬২টি পাইল। মূল সেতুর ২৯৪টি পাইলের মধ্যে এরই মধ্যে ২৪৭টি পাইলের কাজ শেষ হয়েছে। ২৯৪টি পাইলে মোট ৪২টি পিলার। সেতুতে মোট স্প্যান বসবে ৪১টি।