ঢাকা ১০:৩৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ব্যাংকে টাকা আছে, তবে লুটে খাওয়ার জন্য নয় : সংসদে প্রধানমন্ত্রী

  • আপডেট: ১২:১০:২২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯
  • ১২

নতুনেরকথা অনলাইন :

জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ব্যাংকে টাকা আছে, তবে লুটপাটকারীদের জন্য নয়। অনেকেই বলেন যে ব্যাংক খাতে টাকা নেই। ব্যাংকে টাকা থাকবে না কেন? অবশ্যই টাকা আছে। তবে লুটে খাওয়ার টাকা নেই।

সোমবার জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেটের উপর অর্থমন্ত্রীর পক্ষে দেওয়া বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, এই সম্পূরক বাজেট নিয়ে ভেতরে বাইরে অনেক কথা হচ্ছে। কেউ বলছে, বাজেট কিছুই হয় না। আমরা যে বাজেট দেই, তা বাস্তবায়ন হয় না। বাজেট যদি কিছুই না, বাস্তবায়ন না হয়, তাহলে গত ১০ বছরে এত উন্নয়ন হলো কীভাবে। আমরা বাস্তবায়ন করতে পারি না, বাজেট দেই এটা ঠিক না।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ২০০৮ সালে মাত্র ৬১ হাজার কোটি টাকার বাজেট দেখেছি। সেটাকে বাড়িয়ে ৫ লক্ষাধিক কোটি টাকায় উন্নীত করেছি। বিদ্যুৎ নিয়ে সমালোচনা করা হয়েছে। বিদ্যুৎখাতে যেখানে যতটুকু চাহিদা সেই চাহিদা অনুযায়ী আমরা বরাদ্দ দিয়েছি। ৯৩ শতাংশ মানুষ এখন বিদ্যুৎ পাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেকেই ব্যাংকের টাকা লুট করে নিয়ে গেছে। কারা নিয়েছে, সেটা আমরা জানি। তাদের আমরা চিনি। তারা দুর্নীতির দায়ে কারাগারে বন্দি। সময় হলে সবই বলবো। বাংলাদেশের উন্নয়ন আজ বিশ্বের মধ্যে বিস্ময়। দারিদ্র্য ২১ শতাংশে নেমে এসেছে। এটা আমরা আরও নিচে নামিয়ে আনতে কাজ করছি। বাজেটে যেটা খরচ হয়ে গেছে, সেটা পাস করিয়ে দেবেন এই সংসদ সদস্যের প্রতি আমার আহ্বান।

বাজেট বাস্তবায়নে সতর্ক থাকার কারণেই মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

ব্যাংকে টাকা আছে, তবে লুটে খাওয়ার জন্য নয় : সংসদে প্রধানমন্ত্রী

আপডেট: ১২:১০:২২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯

নতুনেরকথা অনলাইন :

জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ব্যাংকে টাকা আছে, তবে লুটপাটকারীদের জন্য নয়। অনেকেই বলেন যে ব্যাংক খাতে টাকা নেই। ব্যাংকে টাকা থাকবে না কেন? অবশ্যই টাকা আছে। তবে লুটে খাওয়ার টাকা নেই।

সোমবার জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেটের উপর অর্থমন্ত্রীর পক্ষে দেওয়া বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, এই সম্পূরক বাজেট নিয়ে ভেতরে বাইরে অনেক কথা হচ্ছে। কেউ বলছে, বাজেট কিছুই হয় না। আমরা যে বাজেট দেই, তা বাস্তবায়ন হয় না। বাজেট যদি কিছুই না, বাস্তবায়ন না হয়, তাহলে গত ১০ বছরে এত উন্নয়ন হলো কীভাবে। আমরা বাস্তবায়ন করতে পারি না, বাজেট দেই এটা ঠিক না।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ২০০৮ সালে মাত্র ৬১ হাজার কোটি টাকার বাজেট দেখেছি। সেটাকে বাড়িয়ে ৫ লক্ষাধিক কোটি টাকায় উন্নীত করেছি। বিদ্যুৎ নিয়ে সমালোচনা করা হয়েছে। বিদ্যুৎখাতে যেখানে যতটুকু চাহিদা সেই চাহিদা অনুযায়ী আমরা বরাদ্দ দিয়েছি। ৯৩ শতাংশ মানুষ এখন বিদ্যুৎ পাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেকেই ব্যাংকের টাকা লুট করে নিয়ে গেছে। কারা নিয়েছে, সেটা আমরা জানি। তাদের আমরা চিনি। তারা দুর্নীতির দায়ে কারাগারে বন্দি। সময় হলে সবই বলবো। বাংলাদেশের উন্নয়ন আজ বিশ্বের মধ্যে বিস্ময়। দারিদ্র্য ২১ শতাংশে নেমে এসেছে। এটা আমরা আরও নিচে নামিয়ে আনতে কাজ করছি। বাজেটে যেটা খরচ হয়ে গেছে, সেটা পাস করিয়ে দেবেন এই সংসদ সদস্যের প্রতি আমার আহ্বান।

বাজেট বাস্তবায়নে সতর্ক থাকার কারণেই মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন।