চাঁদপুরে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে ১ হাজার টাকা করে পেলেন রিক্সা চালকরা

চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) অঞ্জনা খান মজলিশ বলেছেন, লকডাউনের নির্দেশনা ছাড়াও চাঁদপুরে করোনা পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক হওয়ায় সকলের সিদ্ধান্তের আলোকে রিকশা চলাচলের কথা থাকলেও রোগী বহন ছাড়া অন্য রিকশাগুলো আটক করা হয়। কারণ আমাদের মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় সভায় সিদ্ধান্ত ছিলো রোগী ও জরুরি পন্য পরিবহনে রিকশা চলবে। এর বাহিরের গুলো আটক করা হবে। কিন্তু এসব রিকশা চালকরাত দিন এনে দিন খায়। তাদের খুব কষ্ট হয়। তাদের যেন খাবারে কষ্ট না পায় বিবেচনায় নিয়েছি। আটক রিকশা চালকদের প্রধানমন্ত্রীর উপহার দেয়ার ব্যবস্থা করেছি। কারণ লকডাউন চলমান সময়ে তাদের রিকশাগুলো আটক থাকবে। আজকে ৭৯জন রিকশা চালককে ১ হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকাল ১০টায় চাঁদপুর স্টেডিয়ামে রিকশা চালকদের প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

ডিসি বলেন, রিকশা ছাড়া অন্য যে বাহনগুলো আটক হয়েছে সেগুলোর চালকদেরকেও আমরা পর্যায়ক্রমে প্রধানমন্ত্রীর উপহার দেয়ার ব্যবস্থা করব।

উপহার বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার (এসপি) মিলন মাহমুদ। তিনি বলেন, লকডাউন বাস্তবায়ন করতে গিয়ে আমাদের আইন প্রয়োগ করতে হয়। আইন প্রয়োগ করতে গিয়ে অনেক সময় কঠোর হতে হয়। মাঝে মাঝে আইন প্রয়োগ করতে গিয়ে কঠোর বিকল্প নেই। গাড়ী চলবে এটি সরকারের নির্দেশ। তার জন্যই আমরা আটক করি। আমরাও জানি তারা দিন এনে দিন খায়। বিষয়টি আমরা জেলা প্রশাসকের সাথে শেয়ার করি তাদের জন্য কিছু করা দরকার। যাদের বাহন আটক হয়েছে তারা সবাই মাননীয় প্রধামন্ত্রীর উপহারের আওতায় আসবে।

জেলা প্রশাসন কর্তৃক গঠিত স্বেচ্ছাসেবক দল প্রধান ওমর ফারুকের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী।

উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ইমতিয়াজ হোসেন, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইবনে আল জায়েদ হোসেন, এআরএম জাহিদ হাসান, কাজী মো. মিশকাতুল ইসলাম, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক যুগান্তরের জেলা প্রতিনিধি মির্জা জাকির, চাঁদপুর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুজন কান্তি বড়ুয়া, চাঁদপুর সদর টিআই জাহিরুল ইসলাম ভুঁইয়া।

Sharing is caring!