ভারতের হিমাচল প্রদেশে ভারি বৃষ্টিতে বন্যায় অন্তত ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ অনেকে।বুধবার কুল্লু জেলায় হঠাৎ করেই পার্বতী নদীর পানি প্রবেশ করে। এতে অনেক বাড়িঘর ধ্বংস হয়।

কিশতোয়ার জেলাতেই ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। উদ্ধার অভিযানে দুর্যোগ মোকাবিলায় নিয়োজিত বাহিনীর সঙ্গে সেনাবাহিনী যোগ দিয়েছে।

টুইটারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং জানিয়েছেন, অন্তত ৩৬ জন এখনো নিখোঁজ।

বন্যার জেরে হওয়া ভূমিধসের ফলে হিমাচলের বহু সেতু, হাইওয়ে এবং গুরুত্বপূর্ণ সংযোগকারী রাস্তার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এর ফলে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় যান চলাচলও ব্যাহত হয়েছে। মানালি-লে হাইওয়ে এবং গ্রাম্ফু-কাজা হাইওয়েতে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে যান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। ভূমিধসে বন্ধ হয়ে গিয়েছে কালকা-সিমলা হাইওয়ে এবং চণ্ডীগড়-মানালি হাইওয়েও।

রাজধানী সিমলা ও মান্ডি জেলায়, ভূমিধসের নিচে চাপা পড়েছে বহু যানবাহন। হিমাচল প্রদেশের অনেক নদী এবং তাদের শাখা নদীগুলোয় অবিরাম বৃষ্টিপাতের পর বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে।

দেশটিতে গত সপ্তাহে ভারি বৃষ্টিতে ১৬০ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়।

Sharing is caring!