মিচেল স্টার্ক, জস হ্যাজেলউড ও অ্যাস্টন আগারের বোলিং তোপে সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে সোমবার অস্ট্রেলিয়ার সামনে দাঁড়াতেই পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। যে কারণে সহজ লক্ষ্য পেয়ে যায় অজিরা। শেষ পর্যন্ত অ্যালেক্স কারি ও ম্যাথু ওয়েডের ব্যাটে ভর করে সহজেই জয় নিশ্চিত করে দলটি। এরফলে তিন ম্যাচের সিরিজ তারা জিতে নেয় ২-১ ব্যবধানে।

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। আগে ব্যাটিং করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ গুটিয়ে যায় ৪৫.১ ওভারে মাত্র ১৫২ রানে। পরে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেট ও ১৯.৩ ওভার হাতে রেখেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় অস্ট্রেলিয়া।

কেনসিংটন ওভালে টস জিতে ব্যাটিংয়ের শুরুতেই সোমবার ধাক্কা খায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। চতুর্থ ওভারেই হেলমেটে আঘাত পেয়ে মাঠ ছাড়েন এভিন লুইস। এরপর দ্রুত সময়ের মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজও পড়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে। শিমরন হেটমায়ার (৬), শেই হোপ (১৪), নিকোলাস পুরান (৩), ড্যারেন ব্রাভো (১৮) ও কাইরান পোলার্ড (১১) বিদায় নেন দলীয় ৭৫ রানের মধ্যে।

পঞ্চম উইকেট পড়ার পরে আবার মাঠে ফেরেন লুইস। বাকিটা তিনি একাই লড়েছেন। তবে সঙ্গ পাননি কারো। কেবল আলজারি জোসেফ ৪২ বলে ১৫ রান করে লুইসকে কিছুটা সমর্থন দেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ অলআউট হয় ১৫২ রানে। লুইস অপরাজিত থাকেন ৬৬ বলে ৫৫ রানে। তিনি হাঁকান ৫টি চার ও ৩টি ছক্কা।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে স্টার্ক তিনটি এবং অ্যাডাম জাম্পা, জশ হ্যাজেলউড ও অ্যাস্টন আগার দুইটি করে উইকেট নেন।

রান তাড়ায় অস্ট্রেলিয়ার শুরুটা ভালো হয়নি। তৃতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলে ফিরে যান ময়জেস হেনরিকস। এদিকে ১০ রান করতেই ক্যাচ তুলে বিদায় নেন আরেক ওপেনার জশ ফিলিপেও। তবে জয় পেতে অস্ট্রেলিয়ার কোনো সমস্যায় হয়নি।

অধিনায়ক অ্যালেক্স ক্যারি, মিচেল মার্শ, ম্যাথু ওয়েড ও অ্যাস্টন এগারের ব্যাটে হেসেখেলে জয় পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ক্যারি ৩৫ ও মার্শ ২৯ রান করেন। মার্শ ৫১ ও অ্যাস্টন ১৯ রানে অপরাজিত থাকেন।

অসাধারণ বোলিং-ব্যাটিংয়ের সুবাদে ম্যাচসেরা হয়েছেন অ্যাস্টর আগার। আর পুরো সিরিজে বোলিংয়ে ঝড় তুলে মিচেল স্টার্ক হয়েছেন সিরিজ সেরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ১৫২/১০ (৪৫.১) লুইস ৫৫*; স্টার্ক ৩/৪৩, হ্যাজলউড ২/১৮, জাম্পা ২/২৯, অ্যাস্টন ২/৩১।

অস্ট্রেলিয়া: ১৫৩/৪ (৩০.৩৷ ওভার) ওয়েড ৫১*, ক্যারি ৩৫, মার্শ ২৯, অ্যাস্টন ১৯*; জোসেফ ১/১৪।

ফল: অস্ট্রেলিয়া ৬ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ: অস্ট্রেলিয়া ২-১ ব্যবধানে জয়ী।

ম্যাচসেরা: অ্যাস্টন অ্যাগার।

সিরিজসেরা: মিচেল স্টার্ক।

Sharing is caring!