ফরিদপুর জেলার সালথা উপজেলার গট্টি ইউনিয়নের সিংহপ্রতাপ গ্রামের পিতা মোঃ ইউনুচ বিশ্বাস (৫৫) এর মেয়ে মোসাঃ সাবিনা ইয়াসমিন (২৬) নামে এক গর্ভবতী নারী নবজাতক সন্তান সহ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।


আজ ২১সে জুলাই ২০২১ বুধবার সকাল ১১টা ৩০ মিনিটের দিকে মোসাঃ সাবিনা ইয়াসমিন (২৬) নামে এক গর্ভবতী নারী নবজাতক সন্তান সহ মৃত্যু হয়।

মৃত নারীর পিতা মোঃ ইউনুচ বিশ্বাস (৫৫) বলেন আমার মেয়ের ভোর রাত ৪টার দিকে প্রসব বেদনা শুরু হলে স্থানীয় গ্রামের ধাত্রী মোসাঃ সুলতানা বেগম কে ডেকে আনা হয়। তিনি এসে গর্ভবতী নারীর স্বাভাবিক প্রসব করার চেষ্টা করেন। অবস্তার অবনতি দেখলে গর্ভবতী নারীর মা ধার্তী কে বার বার বলেন আপনি না পারলে আমারা ফরিদপুর হাসপাতালে নিয়ে যায় কিন্তু উনি আমাদের অশ্যাস দেন যে কোন সমস্যা নেই প্রসব করাবার চেষ্টা করেন। এই সময় তিনি আমার মেয়ে কে বিভিন্ন ইনজেকশন দেন। পরে সকাল ১০টার দিকে মৃত নবজাতক( কর্ন্যা) সন্তান প্রসব করেন সেই সাথে মায়ের অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরন হয়। রক্ত পাত বন্ধ না হওয়ায় তাকে ফরিদপুরে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেওয়া হলে পথে মায়ের মৃত্যু হয়।এলাকাবাসি জানান এই ধাত্রীর হাতে এর আগেও ৪ টি নবজাতকের মৃত্যু ঘটে। এ সময় এলাকাবাসী দাবি করেন এই অদক্ষ ধাত্রী যেনো আর কোন নবজাতকের নিরব হত্যা না করতে পারে তার জন্য উপযুক্ত পদক্ষেপ গ্রহন করার জন্য অামাদের অনুরোধ করেন। এ বিষয়ে মৃত্যের পরিবার আইনের আওতায় যেতে চান না তবে এই ধার্তী যে আর কোন নবজাতকের তাজা প্রান নিতে না পারে।

এই বিষয় নিয়ে ধাত্রী মোসাঃ সুলতানা বেগমের সাথে যোগাযোগ করার জন্য তার বাড়িতে গেলে তার ঘর তালাবদ্ধ দেখা যায়। ফোনে তার সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে তিনি ফোন ধরেন না।

এই বিষয় নিয়ে সালথা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আশিকুর জামান বলেন আমাদের কাছে কোন অভিযোগ অাসে নি। অভিযোগ অাসলে আমার আইনগত ব্যবস্তা নিবো।

Sharing is caring!