হাজীগঞ্জে এক মেধাবী ছাত্রেরর মৃত্যু। মাত্র ইঞ্জিনিয়ারিং শেষ করেছিল জুয়েল। ঢাকার একটি প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি থেকে কম্পিউটার ইঞ্জিয়ারিং এ মাস্টার্স শেষে চাকুরি প্রত্যাশায় ঘুরছিলেন মেধাবি ছাত্র নওশাদ বিন জুয়েল। হটাৎ রবিবার বিকালে হাসপাতালে নেয়ার পথেই সে মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়েন।

মেধাবী এ শিক্ষার্থী হাজীগঞ্জ উপজেলার ৯ নং গন্ধর্ব্যপুর উ: ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামের শাহাজান মাস্টারের ছেলে। ৬ ভাই ১ বোনের মধ্যে সে চতুর্থ।

 মোহাম্মদপুর গ্রামের বাসিন্দা মানিক মিয়াজী জানান, জুয়েল ছিল একজন মেধাবি ছাত্র। সে লেখা পড়া শেষে চাকুরি খুঁজছিল। বেশ কটি প্রতিষ্ঠানে পরিক্ষাও দিয়েছিল।

তিনি জানান, রবিবার সকালে তার অসুস্থতা বেড়ে যায় পরে তাকে নোয়াখালীতে চিকিৎসকের কাছে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

 জুয়েলে দীর্ঘ দিন আগে শ্বাসনালীতে একটি অপারেশন হয়। সকাল থেকে তার পূর্বের অপারেশন করা শ্বাসনালি বন্ধ হয়ে আসছিল। পরে অবস্থার অবনতি দেখে তাকে হাসপাতালে নেয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়। মেধাবি এই শিক্ষার্থীর অকাল মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

Sharing is caring!