ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার মনে করেন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আগামী দিনের ব্যবসা-বাণিজ্যের পদ্ধতিগত পরিবর্তন অপরিহার্য। তিনি বলেন, শোরুমভিত্তিক ব্যবসা-বাণিজ্যের দিন প্রায় শেষ। করোনা মহামারি ডিজিটাল বাণিজ্য সম্প্রসারণে আমূল পরিবর্তনের সূচনা করেছে। কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে লকডাউনে আইটি প্রযুক্তি ব্যবসার সংকট এবং তা থেকে উত্তরণ বিষয়ক ভার্চুয়াল সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

আজ রোববার (১১ জুলাই) ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়েছে। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, করোনা পরিস্থিতি গোটা বিশ্ব মোকাবিলা করছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচির ধারাবাহিকতা ডিজিটাল অবকাঠামো সম্প্রসারণের কারণে তুলনামূলকভাবে বাংলাদেশ অনেকটাই স্বাভাবিক জীবনধারা ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে। চলমান পরিস্থিতিতে তথ্য-প্রযুক্তির ডিভাইস ছাড়া সরকারি-বেসরকারিসহ কোনো প্রতিষ্ঠানই তাদের কার্যক্রম চালাতে পারছে না।

তিনি আরও বলেন, বিক্রয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ও ডিজিটাল পণ্য সরবরাহের আওতায় আনতে পারলে এর সুফল পাওয়া যাবে। এ জন্য বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতিকে (বিসিএস) এগিয়ে আসতে হবে। মোস্তাফা জব্বার বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন দৃশ্যমান, সামনে প্রয়োগ হবে। এরই ধারাবাহিকতায় রূপান্তরিত হবে ডিজিটাল ডিভাইস। দেশে ডিজিটাল ডিভাইসের বাজার অনেক সম্প্রসারণ হয়েছে। দেশে প্রায় চার কোটি শিক্ষার্থী আছে, তাদের প্রত্যেকের ডিজিটাল ডিভাইসের প্রয়োজন হবে। কাজেই বাজার কৌশলেও পরিবর্তন আনতে হবে।

Sharing is caring!