করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় সোমবার (১০ মে) থেকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ থেকে নেপালে যাওয়া ও আসার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)।

আজ রবিবার (৯ মে) এক সার্কুলারে এ কথা জানায় বেবিচক।

বেবিচক জানায়, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ১২টি দেশকে ‘অতি ঝুকিপূর্ণ’ উল্লেখ করে সেই দেশগুলোর যাত্রীদের বাংলাদেশে আসা ও যাওয়রে ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। সেইসব দেশের তালিকায় নতুন করে যুক্ত হলো নেপাল।

নেপাল ছাড়া নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা অন্য ১২টি দেশ হচ্ছে আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, কলম্বিয়া, কোস্টারিকা, সাইপ্রাস, জর্জিয়া, ভারত, ইরান, মঙ্গোলিয়া, ওমান, দক্ষিণ আফ্রিকা ও তিউনিসিয়া।

বেবিচক জানায়, এসব দেশ থেকে কোনো যাত্রী বাংলাদেশে প্রবেশ বা বাংলাদেশ থেকে এসব দেশে যেতে পারবে না। তবে এসব দেশে অবস্থানরত বাংলাদেশি প্রবাসীরা (অনাবাসী বাংলাদেশি) স্ব স্ব দেশের দূতাবাসের বিশেষ অনুমতি নিয়ে বাংলাদেশে আসতে পারবে। সেক্ষেত্রে তাদের বাংলাদেশে পা রাখার আগেই ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের জন্য নিজ খরচে সরকার নির্ধারিত হোটেল বুকিং করতে হবে।

এর আগে ৩০ এপ্রিল এক প্রজ্ঞাপনে সীমিত আকারে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচলের অনুমতি দিয়ে সার্কুলার দেয় বেবিচক।

সার্কুলারে বলা হয়, শনিবার ১ মে থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বিশেষ শর্তসাপেক্ষে ৩৮টি দেশে কমার্শিয়াল ফ্লাইট চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেই প্রজ্ঞাপনে ১২ দেশ থেকে আসায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এ ছাড়া ২৬টি দেশ থেকে আগতদের ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে নিজ খরচে থাকার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

দেশগুলো হলো- অস্ট্রিয়া, আজারবাইজান, বাহরাইন, বেলজিয়াম, চিলি, ক্রোয়েশিয়া, এস্তোনিয়া, ফ্রান্স, জার্মানি, গ্রিস, হাঙ্গেরি, ইরাক, কুয়েত, ইতালি, লাটভিয়া, লিথুনিয়া, নেদারল্যান্ড, প্যারাগুয়ে, পেরু, কাতার, স্লোভেনিয়া, স্পেন, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, তুরস্ক ও উরুগুয়ে।

সেই সার্কুলারে বেবিচক জানায়, বাহরাইন, কুয়েত ও কাতারের প্রবাসীদের দেশে ফিরে ৩ দিনের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। ৩ দিন পর তাদের করোনা টেস্ট করানো হবে। রিপোর্ট নেগেটিভ এলে তাদের ১১ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এসব দেশ বাদে অন্যদেশ থেকে আসা সবাইকে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

Sharing is caring!