নিজস্ব প্রতিনিধি॥

চাঁদপুর মডেল থানার পুলিশের বিশেষ অভিযান পরিচালনা কালে শনিবার শেষ বিকেলে শহরের জিটি রোড,নিউ ট্রাক রোড ও মাদ্রাসা রোড এলাকা থেকে মাদক মামলার ৬ মাসের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী মো: মাসুদ চাপরাশি, ৩(তিন) মাসের সাজা প্রাপ্ত শাওন গাজী প্রকাশ লিমন ও ৬ (ছয়) মাসের সাজা প্রাপ্ত গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি ফারুক প্রধানীয়াসহ ৩জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। গ্রেফতারের পর আসামীদ্বয়কে চাঁদপুর মডেল থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে।

আসামী মো: মাসুদ চাপরাশি শহরের জিটি রোড চেয়ারম্যান ঘাট এলাকার বাসিন্দা সিরাজ চাপরাশির ছেলে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি মাসুদ চাপরাশিকে ২০১৪ সালের মাদক মামলা জিআর–৬১৩/১৪ এর গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত মামলার পলাতক আসামী। আদালত তাকে সাজা প্রদানকালে সে অনুপস্থিত ছিল বলে আদালত সূত্রে জানা যায়। মামলার রায়ের পর থেকে আসামি মাসুদ চাপরাশি,দেশের বিভিন্নস্থানে পালিয়ে বেড়ায়।

সে শনিবার তার পরিবারের সাথে দেখা করতে আসলে পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে দীর্ঘ চেস্টার পর শনিবার তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে।

এদিকে, মাদক মামলার ৩(তিন) মাসের সাজা প্রাপ্ত গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি শাওন গাজী প্রকাশ লিমনকে শহরের নিউ ট্রাক রোড এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে। সে শহরের নিউ ট্রাক রোড এলাকার বাসিন্দা মৃত নূর মোহাম্মদ গাজীর ছেলে। সে ২০১১ সালের সাজা প্রাপ্ত জিআর-২১১/১১ এর গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি।

আদালত তাকে সাজা প্রদানকালে সে অনুপস্থিত ছিল বলে আদালত সূত্রে জানা যায়। মামলার রায়ের পর থেকে আসামি, শাওন গাজী প্রকাশ লিমন দেশের বিভিন্নস্থানে পালিয়ে বেড়ায়।

অপরদিকে, মাদক মামলার ৬ (ছয়) মাসের সাজা প্রাপ্ত গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি মো: ফারুক প্রধানীয়কে পুলিশ মাদ্রাসা রোড এলাকা থেকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে। সে শহরের মাদ্রাসা রোড এলাকার বাসিন্দা মৃত আবু সাঈদ প্রধানিয়ার ছেলে। আসামী ফারুক প্রধানীয় ২০১৪ সালের মাদক মামলার পলাতক আসামী। সে জিআর-৪/১৪ এর গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি।

আদালত তাকে সাজা প্রদানকালে সে অনুপস্থিত ছিল বলে আদালত সূত্রে জানা যায়। মামলার রায়ের পর থেকে আসামি, ফারুক প্রধানীয়া দেশের বিভিন্নস্থানে পালিয়ে বেড়ায়। সে শনিবার পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে আসামীকে গ্রেপ্তার পূর্বক যথানিয়মে থানা হাজতে রাখা হয়েছে।

এই ৩টি মামলার অভিযানে নেতৃত্ব দেন,চাঁদপুর সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক মো: রাশেদুজ্জামান। তাকে সহযোগীতা করেন, সহকারী উপ-পরিদর্শক মো: আবু হানিফসহ সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যরা। রোববার পুলিশ তাকে আদালতে পাঠাবে বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়।

Sharing is caring!