মঙ্গলবার বিকালে শাহরাস্তি উপজেলার রায়শ্রী (দ:) ইউনিয়নের কুরকামতা গ্রামের নাছির উদ্দীন বেপারী বাড়ির মৃত আমিনউদ্দিন এর পুত্র মোঃ রুহুল আমিন(৬৫) গলায় ফাঁস দিয়ে আত্বহত্যা করেছে বলে পরিবার ও স্থানীয়রা পুলিশকে জানায়।

তিনি প্রায় ৫ বছর যাবৎ অসুস্থ। তবে তিনি জোহরের নামাজ আদায় করেছেন মসজিদে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গেছে এ ব্যযাপারেে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রুজু করা হয়েছ। ঘটনাস্থলে শাহরাস্তি থানার পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) মোঃ মোর্শেদ আলম ভুঁইয়া, এস আই কামাল উদ্দিন, এস আই ইদ্রিছ মিয়া, এস আই চৌধুরী আলম, এ এস আই দেবু, চেয়ারম্যান আবু হানিফ, সহ ব্যক্তিবর্গ উপস্তিত ছিলেন। এ মৃর্ত্যুকে নিয়ে এলাকায় নানা গুঞ্জন হত্যা না আত্নহত্যা।

যদি আত্ন হত্যা হত তাহলে যে আড়ার সাথে ফাঁস দিয়েছেন সেটি একটি বাঁশ, যার দুই পাশের খুটিঁর অবস্থা ভালো নয়। লাশ বহন করার কোনো ক্ষমতা নাই। তাহলে কি ভাবে মারা গেলেন? তার গলায় ফাঁস এর দাগইবা এলো কোঃথেকে?জানাগেছে সম্প্রতি রুহুল আমিন ঢাকা সাভারে ৪০ লক্ষ টাকার জমি বিক্রি করে সে টাকা তার স্ত্রী ফেরদাউসীর একাউন্টে রেখেছেন। এ টাকা তিনি তার ভাই সিরাজুল ইসলামের একাউন্টে রেখেছেন বলে তিনি এ প্রতিনিধিকে জানান। তিনি আরও জানান এ টাকা থেকে সাড়ে ৩ লাখ টাকা চিকিৎসা বাবৎ খরছ।

সুত্রমতে এ টাকাই হল তার মৃর্ত্যুর কারন। রুহুল আমিন টাকার জন্য তার স্ত্রীকে প্রায়ই তাগিত দিত, এ নিয়ে তার ঝগড়া হয়েছিল ঘটনার দিন জোহরের নামাজের পর ।

আসরের নামাজের পরে তার ছোট ভাই আবুল হোমেন কুঠারের জন্য ঘরে ঢুকে দেখেন তার ভাই রশি গলায় মাটিতে পা দাঁড়িয়ে আছে , তার ডাকচিৎকারে তার ভাইয়ের স্ত্রী এসে লাশ মাটাতে নামায়। মাগরিবের নামাজের পরে তাকে গোসল দেওয়া হয় দাপন কাজ শেষ করবে এ সময় পুলিশ এসে যায়।

এ ব্যাপারে শাহরাস্তি থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবদুল মান্নান বলেন, বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখছি। ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসুক।

Sharing is caring!