ঘরোয়া টুর্নামেন্ট স্প্যানিশ লা লিগায় শেষ তিন ম্যাচে দুই ড্র করে শিরোপা দৌড়ে খানিক পিছিয়ে পড়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। এবার উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগেও তারা তাড়াতে পারল না এই ড্র করার ভূত।

মঙ্গলবার রাতে ফাইনালে ওঠার মিশনে সেমিফাইনালের প্রথম লেগে চেলসির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে রিয়াল। প্রতিপক্ষের মাঠ থেকে একটি এওয়ে গোল পাওয়ায় দ্বিতীয় লেগে খানিক সুবিধায় থাকবে ইংলিশ ক্লাব চেলসি। নিজেদের ঘরের মাঠে ঠিক ফেবারিট দলের মতো খেলতে পারেনি রিয়াল। পুরো ম্যাচে একটি মাত্র শট তারা রাখতে পেরেছে লক্ষ্যে। সেটিতেই হয়েছে গোল। অন্যদিকে মাত্র এক গোল করলেও, অন্তত পাঁচবার রিয়ালের রক্ষণে ভয় ঢুকিয়েছে টমাস টুখেলের শিষ্যরা।

ম্যাচের ১৪ মিনিটের সময় প্রথম গোলটিও করে চেলসি। মাঝমাঠ থেকে পাওয়া বল ধরে অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে এগিয়ে যান ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিচ। বিপদ বুঝতে পেরে এগিয়ে এসেছিলেন গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়া। তাকে কাটিয়ে শট নেন পুলিসিচ, বল জড়ায় জালে। এই গোলের মিনিট চারেক আগে খুব কাছ থেকে একটি সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন চেলসির জার্মান ফরোয়ার্ড টিমো ওয়ের্নার। পুরো ম্যাচজুড়েই অবশ্য গোল মিসের মহড়া দিয়েছেন এ তরুণ ফরোয়ার্ড। যার ফলে বারবার সুযোগ তৈরি করেও দ্বিতীয় গোল পায়নি চেলসি।

উল্টো সারা ম্যাচে একটি মাত্র শট লক্ষ্যে রেখে সেটিতেই গোল আদায় করে নেয় রিয়াল। ম্যাচের ২৯ মিনিটের সময় সেই গোলের উৎস জোড়া হেড। প্রথমে কর্নারের কাছ থেকে দূরের পোস্ট ক্রস দেন মার্সেলো। সেটি লাফিয়ে হেড করেন কাসেমিরো। পরের হেডে এডের মিলিতাও খুঁজে নেন বেনজেমাকে। সেই বলটিও হেডের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণে নেন করিম বেনজেমা। পরে জটলার মধ্য থেকে নিখুঁত ফিনিশিংয়ে সমতা ফেরান ম্যাচে। বাকি সময় আর গোল পায়নি দুই দল। দ্বিতীয়ার্ধে বৃষ্টির বেগ বাড়লে ছন্দপতন ঘটে দুই দলের খেলায়।

আগামী বুধবার চেলসির মাঠে সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচ খেলতে নামবে রিয়াল। এদিকে আজ দ্বিতীয় সেমিফাইনালের প্রথম লেগে মুখোমুখি হবে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই ও ম্যানচেস্টার সিটি।

Sharing is caring!