আসন্ন কচুয়া উপজেলার ৭নং সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পুনরায় আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন লিটন। মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত ইউনিয়ন গড়ার পাশাপাশি বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় সদর ইউনিয়নে চলমান উন্নয়ন কর্মকান্ড সমাপ্ত করতে পুনরায় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হতে চান। তিনি ২০১৬ ইউপি নির্বাচনে বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে পাঁচ বছর নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড করে আসছেন। পারিবারিক ভাবেই জসিম উদ্দিন লিটন ও স্বজনরা আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত।

ইউপি চেয়ারম্যান পদে দায়িত্বভার গ্রহণ পর থেকে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন মূলক কাজ করেছেন। ইউনিয়ন পরিষদের বিভিন্ন এলাকায় কাচাঁ রাস্তা সংস্করণ,নতুন করে পাঁকা করন ও বয়স্ক, বিধবা,প্রতিবন্ধী, মাতৃকালীন ভাতাসহ মানুষকে নানা রকম সরকারী সুযোগ-সুবিধা দেয়ার ব্যবস্থা করেছেন। সরকারী সহায়তার পাশাপাশি ব্যাক্তিগত ও দলীয়ভাবে ইউনিয়নের প্রত্যেকটি এলাকার করোনা কালে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদেরকে খাদ্য সামগ্রী ও স্বাস্থ্য সামগ্রীসহ বিভিন্ন উপকরণ পৌঁছে দিয়েছেন। এছাড়া মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত ইউনিয়ন গড়তে আন্তরিকভাবে মাঠে ভূমিকা রেখেছেন তিনি। চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্বপালনকালে বিগত পাঁচ বছরে তার নেতৃত্বে সকল দলীয় কর্মসূচি বিপুল জনসমাগমের মাধ্যমে উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে জাকজমকপূর্ণ পরিবেশে পালিত হয়েছে। কর্মীবান্ধব জননেতা হিসাবে আওয়ামীলীগ-যুবলীগ-ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও তাকেই পুনরায় চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চান।

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন লিটন বলেন, সকলের সহযোগিতায় সদর ইউনিয়ন এলাকায় চোখে পড়ার মত উন্নয়ন কর্মকান্ড করেছি। দলের সকল কর্মসূচি নেতাকর্মীদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধ পালন করেছি। প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়ন কর্মকান্ডকে তৃণমূল পর্যন্ত পৌঁছে দিতে প্রাণপন চেষ্টা করে যাচ্ছি। চেয়ারম্যান হিসাবে আমার সফলতা আর দলের প্রতি নিরষ্কুশ আনুগত্য বিবেচনায় নিয়ে দলের হাইকমান্ড পুনরায় আমাকে মনোনয়ন দেবেন এটা আমার দৃড় বিশ্বাস।

Sharing is caring!