নিজস্ব প্রতিনিধি:

ফরিদগঞ্জ লেখক ফোরাম’র দুই সদস্য অমৃত ফরহাদ ও নুরুজ্জামানের গ্রন্থের প্রকাশনা উৎসব সম্পন্ন হয়েছে। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ‘একজন লেখক যখন কিছু লিখে, তখন সেটা মূলত তার জন্য লিখে; আর যখন সে লেখাটা প্রকাশ হয়ে যায়, তখন সেটা পাঠকের হয়ে যায়। লেখকের সার্থকতা এখানেই। ভালো বই মানুষ ও সমাজের উপকৃত বন্ধু, বই দু’টি সেই স্বাক্ষর রাখবে বলে আশাবাদী।

বক্তরা আরো বলেন, ‘ফরিদগঞ্জে বসে সাহিত্যচর্চা করাটা চাট্টিখানি কথা নয়, বই প্রকাশ করা তো দূরের বিষয়। কিন্তু এই দু’জন লেখক লেখালেখির পাশাপাশি বই প্রকাশ করে বেশ সাহসের পরিচয় দিয়েছেন। আমাদের সকলের উচিত হবে প্রকাশিত বই দু’টিকে সর্বস্তরের পাঠকের কাছে তুলে ধরা এবং প্রচার করা। আমাদের বিশ^াস যে একদিন চাঁদপুরের গণ্ডি ছাড়িয়ে জাতীয় পর্যায়ে এরা তাদের উপযুক্ত স্থান দখল করে নিতে পারবে।’

গতকাল ২৭ ফেব্রুয়ারি রোজ শনিবার বিকাল ৪টায় আম্বিয়া-ইউনুছ ফাউন্ডেশন মিলনায়তনে কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু হয়। পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন তাসনীফ ইমন। শাকিল হাসানের উপস্থাপনায় ফরিদগঞ্জ লেখক ফোরাম সভাপতি ইলিয়াস বকুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন শিশু-কিশোর গল্পগ্রন্থ ‘রাক্ষসের দেশে’র লেখক অমৃত ফরহাদ ও ‘বন্ধ’ু কাব্যগ্রন্থের মো. নুরুজ্জামান।

এসময় আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- বিশিষ্ট প্রবীণ শিক্ষাবিদ মকবুল আহমেদ বিএসসি, চাঁদপুর সাহিত্য পরিষদ সভাপতি- তছলিম হোসেন হাওলাদার। ফরিদগঞ্জ লেখক ফোরাম’র সাবেক সভাপতি, কবি ও প্রকাশক দন্ত্যন ইসলাম, সাহিত্য পরিষদ চাঁদপুর’র সাধারণ সম্পাদক নূরে আলম পাটোয়ারী, কবি ইকবাল পারভেজ। কবি, লেখক ও সম্পাদক মুহাম্মদ ফরিদ হাসান। ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাব’র সহ-সভাপতি মহিউদ্দিন, সাহিত্যিক মোস্তফা কামাল মুকুল, লাউতলী আব্দুর রশিদ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের প্রভাষক মাহাবুবুর রহমান প্রমুখ।

বক্তব্যের ফাঁকে ফাঁকে গান ও কবিতা আবৃত্তি করে দর্শকদের মুখরিত করে রাখেন- ফাতেমা ইয়াছমিন, নওশিন সাবা, শামিম শেখ, ফাতেমা আক্তার শিল্পী, ইয়াছিন দেওয়ান, আনিকা রহমান সিনথিয়া ও তাসনীফ ইমন।

অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে ফরিদগঞ্জ লেখক ফোরাম’র পক্ষ থেকে গল্পকার অমৃত ফরহাদ ও কবি মো.নুরুজ্জামানের হাতে শুভেচ্ছা স্মারক তুলে দেন অতিথিরা। এ সময় নারী ও শিশু সংগঠন ‘ধ্রুপদী’র নেতৃবৃন্দ দুই জনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। সর্বশেষ সবাই মিলে বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন।

Sharing is caring!