চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে নিখোঁজের ৩ দিন পর প্রকৌশলী বাপ্পি মাহমুদ (৩৫) নামক এক ব্যবসায়ীর মৃত্যুদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার সকালে পৌরসভাধীন ১২নং ওয়ার্ডের হাজীগঞ্জ-রামগঞ্জ সড়ক লাগোয়া বেপরী বাড়ীর পুকুর থেকে প্রকৌশলী ও ব্যবসায়ী বাপ্পি মাহমুদের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

বাপ্পি মাহমুদ হাজীগঞ্জ বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাজী সেলিমের বড় ছেলে।

বাপ্পি তার বাপের সাথে তাদের ব্রিক ফিল্ড ও ২টি এলপি গ্যাস সিএনসিজি পাম্প, সারসহ অন্যান্য ব্যবসা দেখুশোনা করতেন। হাজী সেলিমের ২ ছেলে ও ১ মেয়ের মধ্যে বাপ্পি সবার বড়।

প্রকৌশলী বাপ্পি মাহমুদ বিবাহিত তার স্ত্রী ১ ছেলে ও ১ মেয়ে রয়েছে। বড় ছেলে আবদুল্লাহ (৫) মেয়ে আবিদা (৩)।

গত ১৯ ফেব্রুয়ারী রাতে বাপ্পি বাসা থেকে বাজারের উদ্দেশ্যে বের হয়। রাতে বাসায় না ফিরলে তার বাবা হাজী সেলিম হাজীগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। পুলিশ বিভিন্ন স্থানে তার সন্ধান চালায়।

হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আলমগীর হোসেন রনি জানান, প্রকৌশলী বাপ্পি মাহমুদের মোবাইল ট্যাকিং করে তার অবস্থান হাজীগঞ্জ বাজার পাওয়া যায়। আমরা গত কয়েকদিন ধরে রাত দিন তার সন্ধান পেতে বিভিন্ন জায়গায় খবর নিচ্ছি। সকালে স্থানীয়রা খবর দিলে রান্ধুনীমুড়ার একটি পুকুর থেকে তার মৃতু দেহ উদ্ধার করা হয়।

তিনি বলেন, মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুর প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর রহস্য প্রসঙ্গে জানাযাবে।

Sharing is caring!