নিজস্ব প্রতিনিধি॥

চাঁদপুরের কচুয়ার করইশ গ্রামে বুধবার রাতে সীমা আক্তার (২২) নামের এক গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে স্বামী নাছির উদ্দিন ও ভাবী খালেদা আক্তারকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। সে একই উপজেলার কেশরকোট গ্রামের মিলন মিয়ার মেয়ে।

সরেজমিনে জানা গেছে, সীমা আক্তরের সাথে করইশ গ্রামের ইলিয়াস মিয়ার ছেলে নাছির উদ্দিনের সাথে দুই বছর পূর্বে সামাজিক ভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাদের উভয়ের মাঝে বিভিন্ন সময়ে পারিবারিক কলহ সৃষ্টি হয় ।

সোমবার রাতে নাছির উদ্দিন পরিকল্পিত ভাবে তার স্ত্রী সীমাকে হত্যা করে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রাখে বলে সীমা আক্তারের মা বিলকিছ বেগম ও মামা রফিকুল ইসলামসহ নিহত পরিবার দাবি করেন।

কচুয়ার থানা ওসি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গতকাল বৃহস্পতিবার চাঁদপুর মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। সন্দেহভাজন হিসেবে নিহতের স্বামী ও ভাবীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়। তবে ভিকটিমের পরিবারের মামলা অনুযায়ী পরবর্তীতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Sharing is caring!