চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার নীলকমল ইউনিয়নের মধ্যচরের দুর্গম এলাকায় সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে ১০হাজার মিটারের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সেবা পেতে যাচ্ছেন প্রায় ৫০হাজার মানুষ। মঙ্গলবার দুপুরে মধ্যচরে এ বিদ্যুৎ সরবরহের পরীক্ষামূলক সঞ্চালনা করা হয়।

চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি মুজিববর্ষ উপলক্ষে বিদ্যুৎ সংযোগ আনুষ্ঠানিক উদ্ভোধন করবেন। মধ্যচরের ৫০হাজার মানুষ কবে কখন তাদের অকল্পনীয় বিদ্যুতের আলো পাবে অপেক্ষার প্রহর গুনছেন তারা। বিদ্যুতের পিলার, তারটানা শেষে ঘরে ঘরে মিটার স্থাপন করা হলেও এখনো স্বপ্নের মত মনে হচ্ছে চরবাসীর। ইতিমধ্যে ৩ সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে সকল প্রকার কাজ শেষের পথে। কিছুদিনের মধ্যেই আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন হবে এ বিদুৎ।

স্থানীয় পারভিন শিকদার জানান, আমরা চরবাসী কখনো বিদ্যুতের আলো পাবো তা কল্পনাও করি না। আজ আমাদের চরে বিদ্যুতের পিলার, তারটানাসহ সকল কাজ শেষ পর্যায়ে। আমরা ধন্যবাদ জানাই আমাদের চেয়ারমান সালাউদ্দন সরদার, উপজেলা চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটওয়ারীকে। ধন্যবাদ জানাই ডা. দীপু মনি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে।

স্থানীয় নূর মোহাম্মদ জানান, এই বিদ্যুতের ফলে আমাদের ছেলে মেয়েরা বিদ্যুতের আলোয় পড়া লেখা করবে, আমাদের ঘরে টিভি চলবে, আমাদের এখনো স্বপ্নের মতই মনে হচ্ছে।

ইউপি চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন সরদার জানান, সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে মধ্যচরে বিদ্যুতের লাইন টানা হয়েছে। এই চরের ১০ হাজার মিটারের মাধ্যমে ৫০হাজার লোক বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে। এ বিদ্যুতের উদ্বোধন হলে চরাঞ্চলের মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন হবে।

শরীয়তপুর জিএম জুলফিকার রহমান জানান, মধ্যচরে ৬২ কোটি টাকা ব্যায়ে ৩ টি সাবমেরিন ক্যাবল স্থাপনের মাধ্যমে ৩২৫ কিলোমিটার এরিয়ায় বর্তমানে ৫ হাজার মিটারের মাধ্যমে ৪০ হাজার মানুষ উপকৃত হবে। পর্যায়ক্রমে শতভাগ বিদ্যুৎ এর আওতায় আসবে। পরীক্ষামূলক সঞ্চালনা করেন ফরিদপুর বিভাগ পল্লীবিদ্যুৎ বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. বেলায়েত হোসেন।

Sharing is caring!