উপ-মহাদেশের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে অন্যতম হাজীগঞ্জ আহমাদ আলী পাটওয়ারি ওয়াক্ফ এস্টেটের আওতাধীন হাজার হাজার যুবকের কর্মসংস্থানের লক্ষে ও চাঁদপুর জেলার ব্যবসায়ীক প্রাণকেন্দ্র হাজীগঞ্জকে আরো প্রাণচাঞ্চল্য করতে শতকোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বিজনেসজ পার্ক ট্রেড সেন্টারের ১৪ তলায় অত্যাধুনিক হেলিপ্যাডের ঢালাই কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। হ্যালিপ্যাঢের ঢালাই কাজের উদ্বোধন জেলায় ইতিহাসের পাতায় স্বাক্ষী হয়ে থাকবে। মঙ্গলবার সকাল ৯টায় হ্যালিপ্যাডের ঢালাই কাজের উদ্বোধন করেন, আধুনিক হাজীগঞ্জের রুপকার, শিক্ষাবিদ, হাজীগঞ্জ মডেল সরকারি কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ, সৃজনশীল ব্যক্তিত্ব অধ্যক্ষ ড. মো.আলমগীর কবির পাটোয়ারী।

হ্যালিপ্যাড ঢালাই কাজের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আধুনিক হাজীগঞ্জের রুপকার, শিক্ষাবিদ ড. মো. আলমগীর কবির পাটয়ারী বলেন, চট্রগ্রাম, কুমিল্লা, নোয়াখালি, লক্ষীপুর জেলাতেও বিজনেস পার্ক ট্রেড সেন্টারের মতো এমন একটি ভবন খুঁজে পাওয়া যাবেনা। হ্যালিপ্যাড সম্বলিত এমন ভবন অত্র অঞ্চলেও নেই। এ ছাড়াও একই ভবনে শুধু মাত্র মার্কেট ছাড়া কোন বাসাবাড়ীও নেই। তাই এ ভবনটি হলো অত্যাধিুনিক একটি ভবন যে, ভবনে একই সাথে সকল সুবিধা রয়েছে।

তিনি বলেন, এ ভবনে রয়েছে শপিং মল, ব্যাংক, হাসপাতাল, সুইমিংপুল, আন্তর্জাতিক মানের চাইনিজ রেস্টুরেন্ট, স্কাইভিউ রেস্টুরেন্টু, শিশু বিনোদন জোন, কমিউনিটি সেন্টার, আধুনিক মানের আবাসিক হোটেল এবং হ্যালিপ্যাড।

তিনি বলেন, হ্যালিপ্যাডের প্রয়োজনীয়তা হয়তোবা এখন মানুষ প্রয়োজনীয়তা মনে করেনা। এখন থেকে ২০/৩০ বছর পর এর প্রয়োজনীয়তা অনুভব করা হবে। তাই অত্যাধুনিক এ ভবনে হ্যালিপ্যাডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। যে কেউ এ হ্যালিপ্যাডের সুবিধা নিতে পারবে।

তিনি বলেন, চাঁদপুর জেলার প্রাণ কেন্দ্র হাজীগঞ্জ। এখন শিক্ষা-দ্বীক্ষা-ব্যবসা বাণিজ্যে অনেক অগ্রসর। এটি চাঁদপুর জেলাকেও ছাড়িয়েছে। তাই আমার স্বপ্ন হাজীগঞ্জ এক সময় জেলায় রুপান্ত ঘটবে।

উদ্বোধনীয় অনুষ্ঠানে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন হাজীগঞ্জ ঐতিহাসিক বড় মসজিদের খতিব মুফতি আ. রউফ।

হ্যালিপ্যাডের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন শেষে ড. মো. আলমগীর কবির পাটওয়ারী হাজীগঞ্জের সংবাদকর্মীবৃন্দদের বিজনেসপার্ক ট্রেড সেন্টারের ১৪ তলা থেকে নিচ পর্যন্ত ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে দেখান এবং তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন পরামর্শ গ্রহণ করেন।

সকাল সাড়ে ১০টায় ওয়েল ফ্রি হোটেলে সকল সংবাদকর্মীদের সাথে নিয়ে সকালের নাস্তা করেন।

পরবর্তীতে আহমাদ আলী পাটওয়ারী ওয়াক্ফ এস্টেটের অফিস কক্ষে সংবাদকর্মীদের সাথে সংক্ষিপ্ত মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন আহমাদ আলী পাটওয়ারী ওয়াক্ফ এস্টেটের মোতাওয়াল্লি, আধুনিক হাজীগঞ্জের রুপকার, হাজীগঞ্জ মডেল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ড. মো. আলমগীর কবির পাটওয়ারী, হাজীগঞ্জ উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও আহমাদ আলী পাটওয়ারী ওয়াক্ফ এস্টেটের মোতাওয়াল্লি (ভারপ্রাপ্ত) প্রিন্স শাকিল আহমেদ, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এনায়েত মজুমদার, মঞ্জরুল আলম, আহমাদ আলী পাটওয়ারী ওয়াক্ফ এস্টেটের মিডিয়া উইংসের প্রধানম মো. মহীউদ্দিন আল আজাদ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ব্যারিস্টার শাহরিয়ার আহমেদ, হাজীগঞ্জ প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদ ও সাবেক সভাপতি জহিরুল ইসলাম লিটন, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান, হাজীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি খালেকুজ্জামান শামীম, সাধারণ সম্পাদক এনায়েত মজুমদার, সাবেক সভাপতি ও আমার কন্ঠের সম্পাদক মোঃ কামাল হোসেন, মানবসমাজ পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক গাজী সালাহউদ্দিন, পপুলার বিডি নিউজের এডিটর মনিরুজ্জামান বাবলু, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মিরাজ মুন্সি, কোষাধ্যক্ষ পাপ্পু মাহমুদ, প্রচার সম্পাদক ও প্রিয় চাঁদপুরের সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সিফাত, ত্রাণ দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক গাজী মহিনউদ্দিন প্রমূখ।

এ ছাড়াও প্রেসক্লাবের সদস্য এস এম চিশতী, মোরশেদ আলম, মোহাম্মদ হাবিবউল্যাহ, গাজী নাছির উদ্দিন, আলমগীর কবির, মেহেদি হাছান, জহিরুল ইসলাম জয়, হুমায়ুন কবির, সাইফুল ইসলাম, সাখাওয়াত হোসেন শামীম, রেজাউল করিম নয়ন, কবির আহমেদ, সুজন দাস। এ ছাড়াও সাংবাদিক মজিবুর রহমান রনি, মজিব পাটওয়ারী, মাইনুদ্দীন মিয়াজী, সুব্রত বাপ্পি প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!