ফেব্রুয়ারিতে বিয়ে। সেকথা আগেই জানিয়েছিলেন। শনিবার বাগদান পর্ব সেরে ফেললেন ভারতীয় বাংলা টেলিভিশনের হার্টথ্রব নীল ভট্টাচার্য এবং তৃণা সাহা। একে অপরের হাতে পরিয়ে দিলেন ভালবাসার আংটি। উপস্থিত ছিল পরিবার ও বন্ধুরা।

গত বছর অভিনেতা অনির্বাণ ভট্টাচার্যের বিয়ের ঠিক পরে পরেই নিজেদের সম্পর্ককে পরিণতি দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন ‘কৃষ্ণকলি’র নিখিল মানে নীল এবং ‘খড়কুটো’ ধারাবাহিকের গুনগুন অর্থাৎ তৃণা। তারপর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা ছবি আপলোড করেছেন দুই তারকা। কিছুদিন আগে কাপল ফটোশুট সেরেছিলেন। আবার কৃষ্ণকলির সেটে পেটপুরে আইবুড়ো ভাতও খেয়ে ফেলেছেন নীল।

৪ ফেব্রুয়ারি তাঁদের চার হাত এক হচ্ছে টেলিপাড়ার এই দুই তারকার। রিসেপশন হবে ১৪ ফেব্রুয়ারি অর্থাৎ ভ্যালেন্টাইন্স ডে’তে। এর আগের সাক্ষাৎকারে দুই তারকা জানিয়েছিলেন, অভিনয় জীবনে আসার অনেক আগে থেকেই তাঁদের পরিচয়। ২০১১ সালে এমবিএ পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়ার সময় সিএটি ক্লাসে প্রথম দেখা। সেই মুহূর্তেই তৃণাকে ভাল লেগে গিয়েছিল নীলের। ২০১১ সালেই প্রথম ডেটে গিয়েছিলেন দু’জনে। সেখানেই রয়েছে প্রথম চুম্বনের স্মৃতি। আগস্ট থেকে অক্টোবর পর্যন্ত প্রেমের এই প্রখম পর্যায় চলেছিল। তারপর পড়াশোনার জন্য দিল্লি চলে যান তৃণা। নীল রয়ে যান কলকাতায়।

পরে ২০১৫ সালে তৃণার ফেরার পর আবার বন্ধুত্ব শুরু হয়। ২০১৬ সালের ৮ জুন তৃণা বুঝতে পারেন নীল তাঁর কাছে বন্ধুর চেয়েও বেশি। তখনই প্রপোজ করেন। কিন্তু তখন নীল কিছু বলেননি। ঠিক একবছর পর ২০১৭ সালের ২১ জুন বন্ধুদের সামনে তৃণাকে প্রপোজ করেন নীল। তারপর থাইল্যান্ডে একসঙ্গে সময়ও কাটিয়েছেন দু’জনে। ভিডিও কলে আচমকা তৃণাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন নীল। তারপরই শুরু হয় তোড়জোড়। শনিবার আংটি বদল সেরে বিয়ের অনুষ্ঠান শুরু করে দিলেন দুই তারকা।

নতুনেরকথা/ম

Sharing is caring!