২০০৭ সনের এই দিনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সংগঠন জননেত্রী, দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে এগিয়ে চলা বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের চাঁদপুর জেলাসহ হাজীগঞ্জ উপজেলা শাখার হাজার হাজার নেতাকর্মী, সমর্থক, ‘মা’, স্ত্রী, পুত্র, কন্যা, পরিবার পরিজন আত্মীয় স্বজনকে কাঁদিয়ে অকালে পরপারে না ফেরার দেশে তিনি চলে গেছেন।

বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হাজীগঞ্জ উপজেলা শাখার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক প্রয়াত সুজাত আলী মুন্সীর কনিষ্ট পুত্র হোসেন ইমাম হায়দার ছিলেন দক্ষ সংগঠক, কর্মীবন্ধু, অতিথি পরায়ন, সহজ সরলভাবে সাধারণ মানুষকে আপন করে নেয়ার বিশাল মনের অধিকারী।

জাতির জনকের কন্যা বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার হাজীগঞ্জ আগমন। হাজীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনকে প্রত্যেক গ্রাম, ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, পৌর এলাকায় সংগঠিত করা আওয়ামীলীগ কর্মীদেরকে তৎকালীন স্বৈরাচার সরকারের অত্যাচার, নির্যাতন, মামলা, হামলা, জেল, জুলুম মোকাবেলায় জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচনে তার ভূমিকা ছিল অপরিসীম।

হায়দার ভাই আমাদের প্রিয় নেতা সর্বজন শ্রদ্ধেয় মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক প্রাক্তন এমপি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নেতা চাঁদপুর জেলা আওয়ামীলীগের প্রাক্তন সভাপতি দৃঢ়চেতা, সততা ও জনগণের কল্যানে নিজের সুখী জীবন উৎসর্গকারী, হাজীগঞ্জের মাটি ও মানুষের প্রাণ, প্রয়াত আবদুুর রব মিয়ার স্নেহধন্য হয়ে হাজীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগকে একটি শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে গেছেন। মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল, কলেজ, রাস্তাঘাট নির্মান, কন্যাদায়গ্রস্থ পিতা, মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের সহযোগিতা, কর্মসংস্থানে তার বিরাট ভূমিকা ছিল। অসাম্প্রদায়িক চেতনার মানুষ হোসেন ইমাম হায়দার ছিলেন সকল মানুষের প্রিয়জন, অভিভাবক। প্রয়াত নেতার ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকীতে তার বিদেহী আত্মার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানাই। রেখে যাওয়া স্ত্রী-সন্তান, আত্মীয় স্বজন, সহকর্মী সকলের মঙ্গল কামনা করি। মহান স্রষ্ঠা আমাদের সকলের সহায় হউন।

লেখক, প্রয়াত প্রিয় নেতার স্নেহধন্য-

প্রাক্তন সভাপতি
হাজীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ (১৯৯২ইং)
হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।

Sharing is caring!