ডেভ হোয়াটমোর একটি অবিস্মরণীয় স্মরনীয় নাম। বাংলাদেশের ক্রিকেটে এ নামটি স্বর্ণাংক্ষরে লেখা থাকবে। দেশের ক্রিকেটকে এগিয়ে নেয়ার পেছনে যার অবদান অবিস্মরণীয়।  ২০০৩ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত মাশরাফি-সাকিবদের কোচ ছিলেন এই অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি।

হোয়াটমোর বাংলাদেশের কোচ থাকতেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আবির্ভাব ঘটেছিল সাকিব-তামিমদের। এই সময়ে তার নিবিড় পরিচর্যায় সাকিবরা গড়ে উঠেছেন চৌকস খেলোয়ার হিসেবে।

খেলোয়াড়ি জীবন ও কোচিং ক্যারিয়ারে যেসব দল এবং যাদের সঙ্গে কাজ করেছেন, সেখান থেকে সেরা টেস্ট একাদশ বেছে নিয়েছেন ডেভ হোয়াটমোর।  তার এই সেরা দলে স্থান করে নিয়েছেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

সম্প্রতি ক্রিকেট মান্থলিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে হোয়াটমোর তার দেখা সেরা খেলোয়ারদের নিয়ে টেস্ট স্কোয়াড সাজানোর কথা জানান।

এই একাদশে সাকিবকে অলরাউন্ড পজিশন তথা ৭ নম্বরে ব্যাটিংয়ে বিবেচনায় রাখা হয়েছে।

হোয়াটমোরের এই একাদশে শ্রীলংকা থেকেই স্থান পেয়েছেন ৬ জন।  পাকিস্তানের ৩ জন।  কিংবদন্তি অ্যালান বোর্ডারকে অধিনায়ক করা হয়েছে।

শীষ্য সাকিবকে নিয়ে হোয়াটমোর ক্রিকেট মান্থলি সাময়িকীকে বলেন,  ‘আমি জানতাম সে দীর্ঘদিন বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করতে যাচ্ছে। সে যেভাবে ক্রিকেটটা খেলতে চেয়েছে, সেটিই এর কারণ। ওয়ানডেতে ও ছিল ভীষণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ। ব্যাটিং-বোলিংয়ে দক্ষতা আছে, সময় গড়িয়ে চলার সঙ্গে সে স্পিনার-ব্যাটসম্যান হিসেবে সেরা অলরাউন্ডারও হয়েছে। আরও বেশি আত্মবিশ্বাসী হয়েছে। সে ত্রিমাত্রিক খেলোয়াড় এবং বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডার।’

হোয়াটমোরের সেরা টেস্ট একাদশ

সনাৎ জয়াসুরিয়া
আজহার আলী
কুমার সাঙ্গাকারা
অরবিন্দ ডি সিলভা
মাহেলা জয়াবর্ধনে
অ্যালান বোর্ডার (অধিনায়ক)
সাকিব আল হাসান
চামিন্দা ভাস
রডনি হগ
মুত্তিয়া মুরালিধরন
উমর গুল

 

Sharing is caring!