হাজীগঞ্জে মোটরসাইকেল চোপরের প্রধান সমন্বয়কসহ ২ মোটরসাইকেল চোর ও ২টি চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধার করেছে হাজীগঞ্জ থানা পুলিশ। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন আরো কয়েকজন আছে নজরদারিতে। যেকোন মূহুর্তে তাদেরকেও আটক করা হতে পারে বলে জানান মোটরসাইকেল চুরি মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এসআই সুমন।

জানাযায়, হাজীগঞ্জের মোটরসাইকেল চোর চক্রের প্রধান সমন্বয়ক পারভেজকে আটকের পর তার তথ্যের ভিত্তিতে কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম থেকে আটক করা হয় মনিরকে। এ সময় হোন্ডা কোম্পনীর একটি মোটর সাইকেল ও টিভিএস কোম্পানীর দুটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়। আটককৃত মনির হোসেন চৌদ্দগ্রাম উপজেলার উনকোট গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে।

এর পূর্বে গত বৃহস্পতিবার হুন্ডা চোরের হাজীগঞ্জের সমন্বয়ক ৫নং ওয়ার্ডের পারভেজকে আটক করে হাজীগঞ্জ থানার এসআই সুমন। পারভেজের তথ্যের উপর ভিত্তি করে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে হুন্ডসহ মনির হোসেনকে আটক করা হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সম্প্রতি সময়ে চাঁদপুরসহ জেলার হাজীগঞ্জ ও অন্যান্য উপজেলার বাসাবাড়িসহ উপজেলার বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল চুরি হয়। এর মধ্যে কয়েকটি মোটরসাইকেলের মালিক হাজীগঞ্জ থানা, চাঁদপুর সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।

সেই জিডির সূত্র ধরে তদন্তে নামে হাজীগঞ্জ থানা পুলিশ। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে এসব চোরদের চিহ্নিত করা হয়।

এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মো. আবদুর রশিদ জানান, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে একটি দীর্ঘ দিন চাঁদপুরে এসে মোটরসাইকেল চুরি করে নিয়ে যায়। তাদের প্রধান সমন্বয়ক হাজীগঞ্জের পারভেজকে আটকের পর মূল রহস্য উদঘাটিত হয়। এ ঘটনায় ২জনকে আটক করা হয়েছে। সন্দেহভাজন আরো কয়েকজন নজরদারিতে রয়েছে।

হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আলমগীর হোসেন রনি জানান, এ চোরচক্রটি একটি সিন্ডিকেটে কাজ করে আমরা সিন্ডিকেটের সকল সদস্যকে ধরার চেষ্টা করছি।

Sharing is caring!