চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলার চরমুকুন্দি গ্রামে ভাগ্নিকে ধর্ষণের দায়ে মামাকে আটক করেছে পুলিশ। ধর্ষককে আদালতে হাজির করলে আদালত গাজীপুরস্থ কিশোর সংশোধনাগারে প্রেরণ করেছে।

অভিযুক্ত কিশোর সাব্বিরের বাড়ি মতলব পৌরসভার চরমুকুন্দি গ্রামে। সে স্থানীয় মতলব উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণিতে পড়ে। কিশোর ও কিশোরী সম্পর্কে মামা-ভাগ্নি।

কিশোরী মেয়েটির বাড়ি মতলব পৌর এলাকায়। সে স্থানীয় একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ওই কিশোরী গত রোববার তার নানার বাড়িতে বেড়াতে যায়। ওই দিন সন্ধ্যায় কিশোর সাব্বির কিশোরীকে ফুসলিয়ে নানার বাড়ির দু’টি বসতঘরের মাঝখাটে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় কিশোরীর চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে ওই কিশোর দৌঁড়ে পালিয়ে যায়।

কিশোরীর স্বজনরা প্রথমে বিষয়টি গোপন রাখার চেষ্টা করে। স্থানীয়ভাবে মীমাংসার চেষ্টা করেও সমঝোতায় পৌঁছাতে পারেনি। পরে মঙ্গলবার রাতে কিশোরীর মা বাদী হয়ে ওই কিশোরকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা করেন।

কিশোরীর মা বলেন, অভিযুক্ত সাব্বির এলাকায় বখাটে হিসেবে পরিচিত। সে আমার মেয়ের ইজ্জত নষ্ট করেছে। এ জন্য থানায় ছেলেটির বিরুদ্ধে মামলা করেছি। তার কঠোর শাস্তি হওয়া দরকার।

মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ স্বপন কুমার আইচ বলেন, মঙ্গলবার রাত ১০টায় অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে ওই কিশোরকে আটক করা হয়। বুধবার সকালে চাঁদপুর বিচারিক হাকিমের আদালতে হাজির করা হলে বিজ্ঞ আদালত কিশোরকে গাজীপুরের কিশোর সংশোধনাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এছাড়াও কিশোরীকে চাঁদপুর সদর হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়েছে। সেখানে পরীক্ষা শেষে তাকেও জবানবন্দির জন্য আদালতে পাঠানো হয়।

Sharing is caring!