চাঁদপুর সরকারি জেনারেল (সদর) হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৪ ঘন্টায় ৪জনের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) দুপুর থেকে বুধবার (২১ অক্টোবর) সকাল পর্যন্ত এসব মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। চাঁদপুরে দীর্ঘদিন পর করোনায় আক্রান্ত অবস্থায় মৃত্যুর ঘটনা ঘটলো। তাছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে স্বল্প সময়ের ব্যবধানে উপসর্গে সর্বাধিক মৃত্যুর ঘটনা এটি।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, করোনায় আক্রান্ত অবস্থায় আলফাতুন্নেছা (১২৪) নামের এক বয়োবৃদ্ধা মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে মারা যান। তার বাড়ি ফরিদগঞ্জের মূলপাড়া এলাকায়। ইসলামী আন্দোলনের স্বেচ্ছাসেবক টিমের মাধ্যমে রাতেই তাকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফন করা হয়েছে।

সদর হাসপাতালের করোনা বিষয়ক ফোকালপার্সন ও আরএমও ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল জানান, করোনায় আক্রান্ত আলফাতুন্নেছা সোমবার হাসপাতালে ভর্তি হন। এর আগেও তিনি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। তখন নমুনা পরীক্ষায় তার করোনা শনাক্ত হয়।

ডা. রুবেল আরো জানান, মৃত ৩জন হলেন- হাজীগঞ্জের মকিমাবাদ এলাকার জেসমিন (৫০), ফরিদগঞ্জের দিলীপ দাস (৫২) ও হাবিবুর রহমান (৮০)। তাদের সবার করোনার উপসর্গ ছিল। এর মধ্যে জেসমিন মঙ্গলবার দুপুর ২টা ১০ মিনিটের দিকে হাসপাতালে ভর্তির ১৫ মিনিট পর মারা যান। দিলীপ দাস মঙ্গলবার রাত ২টায় হাসপাতালে আসেন। বুধবার সকাল ৭টায় তিনি মারা যান। হাবিবুর রহমান মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় হাসপাতালে আসার পর সন্ধ্যা ৭টার দিকে মারা যান।

ডা. রুবেল জানান, উপসর্গে মৃত ৩জনের স্বজনরা নমুনা দিতে রাজি না হওয়ায় তাদের নমুনা সংগ্রহ করা যায়নি। করোনার কমিউনিটি ট্রান্সমিশন চলমান থাকায় মৃতদের নমুনা সংগ্রহ জরুরী নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

করোনায় নতুন একজনের মৃত্যুসহ জেলায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ৭৮জনে।

Sharing is caring!