শাহরাস্তি প্রতিনিধিঃ

শাহরাস্তিতে সন্ত্রাসী হামলায় দোকানপাট ভাঙচুর ও নগদ অর্থ লুটপাট করার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার বিবরণে জানা যায় ১০ অক্টোবর শনিবার দুপুরে সুচিপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের শাহরাস্তি-রামগঞ্জ সীমান্তবর্তী এলাকার শাহারাস্তির লোট্টা বাজারে সন্ত্রাসীদে হামলায় দোকান পাট ভাঙচুর ও নগদ অর্থ লুটপাট করে নিয়ে যায়।

এতে ৪জন আহত হয়। ক্ষতিগ্রস্ত দোকানপাট মালিকের অভিযোগ সূত্রে জানা যায় সূচীপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের রাগৈ গ্রামের তপাদার বাড়ীর মৃত আনোয়ার উল্লাহ তপাদারের ছেলে সন্ত্রাসী মোঃ ফরিদ উল্লা তপাদার মমের নেতৃত্বে আশারগোডা গ্রামের আলার বাড়ীর হারুরনের ছেলে মোঃ রাকিব হোসেন (রনি) পাটোয়ারি বাড়ি শফিক পাটোয়ারী ছেলে মোঃ সুমন, সুরসইর সাহেদ পাকিস্তানিসহ ভাড়াটিয়া ১৮/২০ জন মুখোসদারী সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে স্থানীয় লোট্টা বাজারে অতর্কিত ককটেল ও বোমা বারুদফুটে সন্ত্রাসী হামলা চালায়।

এতে অগ্রণী এজেন্ট ব্যাংকিং এর প্রোপ্রাইটর ও এম এস টেলিকমের দোকান ভাঙচুর স্বত্বাধিকারী মোতাহার হোসেনের ১০লক্ষ টাকা নিয়ে যায়, মেসার্স ভূঁইয়া টাইলস ভাঙচুর নগদ অর্থ লুটপাট, মেসার্স কবির ট্রেডার্স ভাঙচুর, ও ডাক্তার ফারুকের দোকান ভাঙচুর করে অর্থ লুটপাট করে নিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা ওই সময় স্থানীয় জনতা সন্ত্রাসী ফরিদ উল্লা তপাদার মমকে স্থানীয়রা আটক করে থানা পুলিশকে সোপর্দ করে দেন, বাকি মুখোসদারী সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

এ বিষয়ে রামগঞ্জ থানার এসআই আনোয়ার হোসেন ও শাহারাস্তি থানার এস আই মইনুল ইসলামসহ সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ও ক্ষতিগ্রস্তদের দোকানপাটের আলামত নেন। স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় মোঃ ফরিদ উল্লা দফাদার মম দীর্ঘদিন এলাকায় সন্ত্রাসী করে আসছেন বিভিন্নভাবে হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে এবং তার সাথে স্থানীয় ৪/৫ জন সন্ত্রাসী রয়েছে বলে জানান।

এ বিষয়ে শাহরাস্তি থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়, মামলা নাম্বার ১১, তাং ১০/১০/২০ খ্রিস্টাব্দ। শাহরাস্তি থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ আলম এলএলবি জানান সন্ত্রাসী হামলার বিষয়টি আমরা অবগত হয়েছি পুলিশ সেখানে গিয়ে একজনকে আটক করেছে, বাকি আসামিদের কে ধরার জন্য তৎপরতা রয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত দোকানদারা জানান এ ধরনের সন্ত্রাসী হামলায় দোকানপাট ভাঙচুর ও অর্থ লুটপাটের সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কঠিন শাস্তি দাবি করেন, এই ধরনের কর্মকাণ্ড হলে সন্ত্রাসীদের কারণে ব্যবসা পরিচালনা করতে জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। আমরা স্থানীয় সংসদ সদস্য মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি মহোদয়ের নিকট, সন্ত্রাসী হামলাকারীদের বিরুদ্ধে কঠিন শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মহোদয়ের সু-দৃষ্টি কামনা করছি

Sharing is caring!