আগামী ১০ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মামুনুর রশিদ বেলাল নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। মঙ্গলবার (৬অক্টোবর)দুপুরে তার নির্বাচনী কার্যালয় ইশতেখার ঘোষণা দেন ।

এ সময়ে চাঁদপুর প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিলন ও সাধারণ সম্পাদক এ এইচ এম আহসান উল্লাহসহ প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

মেয়র প্রার্থী মামুনুর রশিদ বেলাল ইশতেহারটি নিম্নে তুলে ধরা হলো-

অগ্রাধিকারভিত্তিতে শুধু দুর্নীতি দমন নয়, দুর্নীতি মূলোৎপাটন কর্মসূচি গ্রহণের কথা বলে ন। এছাড়া সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজমুক্ত নিরাপদ পৌরসভা গঠন, ভেজাল মুক্ত খাদ্য তদারকি ও ইনসাফপূর্ণ বাজার নিয়ন্ত্রন, পৌর উন্নয়নে বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করা, যানজট নিরসনে বিশেষ ব্যবস্থা, শ্রমের মর্যাদা ও শ্রমিকের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠা, রিক্সা, ভ্যান, ঠেলাগাড়ীর নিবন্ধন (রেজিষ্ট্রেশন) ফি- মওকুফ করা, ইজি বাইক (অটো) লাইসেন্স ফি অর্ধেক করণ, বাসা ভাড়া সহনশীলাবস্থায় আনয়নের জন্য হোল্ডিং ট্যাক্স ৪০% কমানো, পানির বিল ৪০% কমানোসহ বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের নিশ্চয়তা প্রদান, ‘ইউটিলিটি সার্ভিস’ তথা নাগরিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করণ, ব্যবসায়িক কর্মকান্ড গতিশীল ও নিরাপদ রাখার ব্যবস্থা গ্রহণ, হকারদের পুনর্বাসনের জন্য স্থায়ী বরাদ্দ এবং ছিন্নমূল ও ভ্রাম্যমান হকারদের পরিচয়পত্র প্রদান, পথিক এবং ভ্রাম্যমান মানুষের জন্য শহরের বিশেষ পয়েন্টে ৩০টি স্যানিটারী টয়লেট নির্মাণ করা, পৌর এরিয়ার সকল মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের জন্য সাধ্যানুযায়ী নগদ অর্থ ও খাদ্য সহায়তা প্রদান, ক্ষুদে টোকাইদের ঠিকানাবিহীন জীবন থেকে ফিরিয়ে আনতে পূনর্বাসন কেন্দ্র নির্মাণ, বয়স্কদের জন্য পৌরসভায় আলাদা বিশ্রামাগার তৈরি করা, কোন প্রকার হয়রানি ব্যতিত তাদের কাঙ্খিত সেবা তাদের কাছে পৌছে দেওয়া, নারী জাতির মর্যাদা সমুন্নত করার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ গুরুত্ব প্রদান, জলাবদ্ধতা দুরিকরণ, পরিচ্ছন্ন ও দুর্গন্ধমুক্ত পৌরসভা বির্নিমানে উদ্যোগ গ্রহন, সংখ্যালঘুদের সার্বিক অধিকার নিশ্চিতকরণ, পৌর কবরস্থানে শীততাপনিয়ন্ত্রীত লাশ গোসল ও সংরক্ষণের সু-ব্যবস্থা করা, বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধীদের ভাতা প্রদানের কথা উল্লেখ করেন।

মেয়র প্রার্থী বলেন বিগত মেয়রগণের দেওয়া সকল ওয়াদা-প্রতিশ্রুতি, দেখানো সকল স্বপ্ন ও ঘোষিত নির্বাচনী ইশতেহার অকার্যকর ও অন্তঃসারশূন্য ফাঁকা বুলিতে পরিণত হয়েছে। চাঁদপুর পৌরসভাকে প্রথম সারির পৌরসভা বলা হলেও,পরিবেশদূষণ, যানজট, ধুলা-বালি, বিশুদ্ধ পানির সঙ্কট, অনেক সময় সাপ্লাইকৃত পানি মুখে নেওয়া যায় না, নিত্য ব্যবহার্য কাজ-কর্মে পানি ব্যবহার করা যায় না, পানির সাথে দূর্গন্ধ ও পোকামাকড় আসে, রোগ-ব্যাধির আধিক্য, ঠিকমত গ্যাস সরবরাহ থাকে না, এছাড়া জলাবদ্ধতা, মশার উপদ্রব, খাবারে মারাত্মক ভেজাল, হাইজ্যাক-ছিনতাই, মাদকদ্রব্যের অবাধ ছড়াছড়ি, কিশোরগেং এর উপদ্রব, জান-মালের নিরাপত্তার মারাত্মক হুমকী । এছাড়াও মানব জীবনে হতাশা, অস্থিরতা ও অনিশ্চয়তা নিত্য নৈমিত্তিক বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

পৌরবাসীর এ দূরবস্থার জন্য মূল কারণ হল- দুর্ণীতি, টেন্ডারবাজী, অপরিকল্পিত ও উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে ক্ষমতাসীন দলের অশুভ প্রভাব-প্রতিপত্তি। এ কারণে উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড টেকসই হয় না। চাঁদপুর পৌরসভা একটি অশুভ কায়েমী স্বার্থবাদী গোষ্ঠির সিন্ডিকেটে পরিণত হয়েছে। তা না হলে ১২৪বছরের ঐতিহ্যবাহী শহরের এ করুণ দশা হতে পারে না।

আপনারা যদি সুস্থ পরিবেশে বাঁচতে চান, শান্তি-সুখে থাকতে চান, তাহলে এ অশুভ কায়েমী স্বার্থবাদী সিন্ডিকেটকে অবশ্যই ভাঙতে হবে। নোংরা রাজনীতির প্রভাব-দৌরাত্ম থেকে পৌরবাসীকে রক্ষা করতে হবে। জনজীবনে স্বস্তি ও শান্তি ফিরিয়ে আনতে হবে।

শহরকে বসবাসোপযোগী শান্তির শহরে পরিণত করতে হবে। এর জন্য প্রয়োজন আমূল পরিবর্তনের। দরকার ব্যাপক সংস্কারের। প্রয়োজন সমন্বিত উদ্যোগের। প্রয়োজন সৎ, যোগ্য ও আল্লাহভীরু নেতৃত্বের।

তাই আলেম-উলামা, পীর-মাশায়েখ, শিক্ষাবিদ, আইনজীবী, বিভিন্ন পেশাজীবী ও শ্রমজীবী মানুষের সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে মামুনুর রশিদ বেলাল মেয়র পদে হাতপাখা মার্কায় পৌরবাসীর ভোট প্রার্থনা করেছেন।

নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণাকালে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চাঁদপুর জেলা শাখার সভাপতি শেখ মোহাম্মদ জয়নুল আবেদিন এবং সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন রাশেদ সানিসহ জেলা নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

1 Share

Sharing is caring!