লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহকে কালো তালিকাভুক্ত করার জন্য জার্মানির ওপর প্রচণ্ড চাপ সৃষ্টি করেছে আমেরিকা।

এমন তথ্য ও ভিডিও ফাঁস করেছেন লেবাননের সাংবাদিক এবং রাজনৈতিক ভাষ্যকার মারওয়া ওসমান।খবর পার্সটুডের।

টুইটারে দেয়া পোস্টে মঙ্গলবার তিনি জানান, জার্মানিতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রিচার্ড গ্রেনেল একটি ভিডিওতে খোলামেলা ভাবে ঘোষণা করেন, আমরা জার্মানির ওপর প্রচণ্ড চাপ সৃষ্টি করেছি, যাতে হিজবুল্লাহকে নিষিদ্ধ করা হয়।

আমি মনে করি ফ্রান্স এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের একই পথ অনুসরণ করা উচিত। গত ১৮ আগস্ট মার্কিন রাষ্ট্রদূত রিচার্ড গ্রেনেল এক ভিডিওতে এসব কথা বলেন।

জার্মানির জাতীয় সংসদ গত ডিসেম্বর মাসে একটি প্রস্তাব পাস করে চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেলের কাছে পাটায় যাতে জার্মানির মাটিতে হিজবুল্লার সব তৎপরতা নিষিদ্ধ করার দাবি জানানো হয়।

তার কিছুদিন আগে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও জার্মানি সফর করেন এবং সে সময় তিনি ব্রিটেনের পথ অনুসরণ করে হিজবুল্লাহকে নিষিদ্ধ করার জন্য জার্মানির প্রতি আহ্বান জানান।

চলতি বছরের ৩০ এপ্রিল জার্মানির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিজবুল্লাহকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে কালো তালিকাভুক্ত করেন এবং জার্মানির মাটিতে হিজবুল্লার সমস্ত তৎপরতা নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বেশিরভাগ দেশ হিজবুল্লাহকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে কালো তালিকাভুক্ত করা থেকে বিরত রয়েছে।

১৯৮২ সালে দক্ষিণ লেবাননে আগ্রাসন চালায় ইহুদিবাদী ইসরাইল। ইসরাইলের দখলদারিত্ব থেকে দক্ষিণ লেবাননকে মুক্ত করার জন্য গড়ে ওঠে হিজবুল্লাহ নামক সংগঠন।

এটি এখন মধ্যপ্রাচ্যে ইসরাইল-বিরোধী অত্যন্ত প্রভাবশালী সংগঠন হিসেবে পরিচিত। সিরিয়ায় উগ্র সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে হিজবুল্লাহ।

Sharing is caring!