নিজস্ব প্রতিবেদক :

২৮ আগস্ট চীনের উইঘুর মুসলিম গণহত্যা দিবস। চীনের সংখ্যালঘু হত্যা ও নির্যাতন বন্ধ করারা দাবিতে মানববন্ধন, প্রতিবাদ সমাবেশ ও সচিত্র প্রর্দশনী:

বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারদের অধিকার আদায়ের আন্দোলন ও সংগ্রামের পাশাপাশি সকল শ্রেনীর মানুষের ন্যায় অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করে যাচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ সবসময় মানুষের ধর্মীয় স্বাধিনতায় বিশ্বাস করে। বিশ্বের সকল সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে অংশগ্রহন প্রত্যেকটি মানুষের নৈতিক ও মানবিক দায়িত্ব বলে আমরা মনে করি। সমগ্র পৃথিবী একটি পরিবার। সাম্প্রতিক সম্প্রতি বজায় রাখা প্রত্যেকটি দেশের নৈতিক দায়িত্ব।কিন্তু সাম্প্রতিক চীন সরকারের সাম্প্রদায়িক কর্মকান্ড আমরা মারাত্মকভাবে উদ্বিগ্ন। চীনের শিংজিং প্রদেশে বসবাসরত প্রায় ১ কোটি ২৬ লাখ মুসলমানদেদের ওপর অমানবিক ভাবে নির্যাতন ও নিপীড়ন হচ্ছে যা সাম্প্রতিক সম্প্রতি বজায় রাখার ক্ষেত্রে প্রধান অন্তরায়।

মুসলমানদের সংখ্যা কমানোর জন্য মুসলিম নারীদের জোরপূর্বক গর্বপাত করানো, জন্মনিয়ন্ত্রণ রোধ ঔষধ খাওয়ানো, ধর্মান্তরিত করা, ধর্ষণ, বন্দী শিবিরে আটকে রেখে নিযাতন করা ইত্যাদি কাজ কর্মের মাধ্যামে চীন সরকার প্রতিনিয়ত মানবাধিকা লঙ্গন করছে।

কিন্তু দুঃখের বিষয় জাতিসংঘ সহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোর কোন জোরালো উদ্যোগ লক্ষ্য করা যাচ্ছে না।সম্প্রতি চীনেরর জিনজিয়াং প্রদেশে মুসলিমদের মসজিদ ভেঙ্গে পাবলিক টয়লেট বানানো হয়েছে যা অত্যন্ত দুঃখজনক কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করা কখনো উচিত নয়।
২৮ আগস্টকে চীনের জিনজিয়াং প্রদেশের মুসলিমরা উইঘুর গনহত্যা দিবস হিসেবে পালন করে থাকে। এশিয় সিআই এর ওয়াল্ড ফ্যাক্ট বুক অনিযায়ী চীনের মোট জনসংখ্যার ১.২ শতাংশ মুসলিম। উইঘুর মুসলিমদের সামাজিক, অর্থনৈতিক ও ধর্মীয় স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে হবে অন্যায় বাংলাদেশে অবস্থিত চীনা দূতাবাস ঘেরাও কর্মসুচী পালন করবে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। যা মানবন্ধনে করে সংগঠনটি সাধারন সম্পাদক মোহাম্দ আলম মামুন।

Sharing is caring!