চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের শাহরাস্তি কাকৈরতলা এলাকায় পদ্মা পরিবহনের
বাস ও সিএনজি চালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই সিএনজি চালকসহ ৩জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অটোরিকশায় থাকা আরও ৩ যাত্রী।

বুধবার (২৯ জুলাই) দুপুর ১টার দিকে উপজেলার টামটা উত্তর ইউনিয়নের কাকৈরতলা
ঈদগাঁ সংলগ্ন এলাকায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা চাঁদপুরগামী পদ্মা পরিবহনের বাস ও শাহরাস্তি থেকে কুমিল্লা মোদফ্ধসঢ়;ফরগঞ্জগামী সিএনজি চালিত অটোরিকশার সাথে
এই দূর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- শাহরাস্তি উপজেলার টামা ইউনিয়নের হোসেনপুর গ্রামের শুকু মিয়ার ছেলে সিএনজি চালক মনির হোসেন (৩৫), সিএনজি যাত্রী ফেনি জেলার সোনাগাজী উপজেলার চরপন্ডিয়া গ্রামের মৃত প্রকাশ চক্রবর্তীর ছেলে গুনধর চক্রবর্তী (৭০) ও নোয়াখালী জেলার চর আমান উল্লাহ এলাকার বঙ্কিম চক্রবর্তীর ছেলে হরি চন্দ্র চক্রবর্তী
(৫৫)। আহতদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ জানায়, নিহত গুনধর চক্রবর্তী ও হরি চন্দ্র চক্রবর্তী কুমিল্লার মোদাফ্ধসঢ়;ফরগঞ্জ খনেশ^র গ্রামে তাদের এক আত্মীয়কে দাহ শেষে বাড়িতে যাচ্ছিলেন।

পথিমধ্যেই তারা দূর্ঘটনার শিকার হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। শাহরাস্তি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) চৌধুর আলম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ৩ জনের মরদেহ ও দূর্ঘটনার শিকার অটোরিকশা উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে।

আহত ৩জনকে স্থানীয় উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেছেন।

শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম জানান, পদ্মা বাসটি বর্তমানে শাহরাস্তির দোয়াভাঙ্গা স্টেশনে আটক রয়েছে। নিহত ৩ জনের মরদেহ ময়না তদন্ত ছাড়া অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) এর নিকট পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে হস্তান্তর করা হবে।

Sharing is caring!