হাজীগঞ্জ, ১৩ মে, বুধবার:

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে মার্কেট করতে এসে জরিমানা গুণলেন প্রবাসির স্ত্রী। বুধবার দুপরে হঠাৎ হাজীগঞ্জ বাজারে অভিযানে নামেন চাঁদপুর জেলাপ্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবিদা সিফাত। বাজারে ভ্রাম্যমান আদালত আসার কথা শুনে হঠাৎই বাজারের সকল দোকান বন্ধ হতে শুরু করে। যে যার মতো করে দোকান বন্ধ করে বিভিন্ন দিক চলে যায়।

অনেক দোকানদার দোকানের ভেতরে কাস্টমার রেখে বাহির দিয়ে তারা মেরে দেয়। এ অবস্থায় ম্যাজিস্ট্রেটের সম্মুখে ঈদের বাজার হাতে নিয়ে বিপাকে পড়েন এক প্রবাসির স্ত্রী প্রশ্নে সুদুত্তর দিতে না পারায় তাকে ৫’শ টাকা জরিমানা করা হয়।

একই সময়ে আরেক ব্যবসায়ী মাস্ক ছাড়া মার্কেটে চলাফেরা করায় তাকেও ৫’শ টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

আরো কয়েকটি দোকানে সামাজিক দূরত্ব না মানায় জরিমানা করা হয়।

এ সময় তার সাথে হাজীগঞ্জ থানার এসআই জয়নাল আবেদীন উপস্থিত ছিলেন।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবিদা সিফাত চলে যাওয়ার পর আবারে ব্যবসায়ীরা তাদের দোকান খুলে বসে।

উল্লেখ্য, গত ৬ এপ্রিল থেকে চাঁদপুর জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান এ সময়ে কোন দোকান খোলা বা এক জেলা থেকে অন্য জেলায় যাতায়াত, এক উপজেলা থেকে অন্য উপজেলায় যাতায়াত নিষিদ্ধ করা হয়।

পরবর্তীতে গত ১০ মে থেকে সরকার লকডাউন শিথিল করার ঘোষণা দেয়। কিন্তু চাঁদপুর জেলায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের সিদ্ধান্ত ক্রমে এ লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হয়।

তবে এ লকডাউন অনেক ব্যবসায়ীরাই মানছেনা। ফলে জেলার শুধু হাজীগঞ্জ নয়, চাঁদপুর সদর, বাবুরহাট, বাকিলা, ফরিদগঞ্জ, কচুয়া, শাহরাস্তি, মতলব উত্তর ও দক্ষিণ সব জায়গাতেই মার্কেট গুলোতে মহিলাদের উপচে পড়া ভীড় লক্ষা করা গেছে।

Sharing is caring!