হাজীগঞ্জ, ১ মে, শুক্রবার:

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে সরকারি বরাদ্ধের চাল ১০ কেজির স্থলে ৫ কেজি দেয়ার প্রতিবাদ করায় মা ও প্রতিবন্ধী মেয়েসহ ৩জনকে বেদম পেটালেন মেম্বারের সন্ত্রাসী বাহিনী।

হাজীগঞ্জ উপজেলার ১০নং গন্ধর্ব্যপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের সর্দার বাড়ীতে গত ১৯ এ ঘটনা ঘটে। ওই ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ স্বপন মিয়ার সন্ত্রাসী বাহিনী বতু, ফারুক ও আরমানসহ সঙ্গবদ্ধ একটি দল দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সর্দার বাড়ীর আবদুল খালেকের স্ত্রী মনোয়ার বেগম ও তার প্রতিবন্দ্বী মেয়ে সুমী বেগম এবং সাগর চৌধুরীর উপর হামলা করে।

হামলায় মনোয়ারা বেগম ও প্রতিবন্দ্বী মেয়ে সুমী মারত্মক আহত হয়। পরে স্থানীয়রা আহতদের হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

ইউপি মেম্বার স্বপন তাদের একই বাড়ির সাগর চৌধুরি কে ১০ কেজি চাউলের স্থলে ৫ কেজি ৫শ গ্রাম চাউল দিলে সাগর চৌধুরী বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন বাচ্চুকে জানান । চেয়ারম্যান বিষয়টি মীমাংসা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়, অথচ ওজনে কম দিয়েও ক্ষান্ত হননি স্বপন মেম্বার ইউপি চেয়ারম্যানকে জানানোর কারণে স্বপন তার ভাই মতিউর রহমান ফারুক এবং তার ছেলে আরমান, শিপন, বতু, ফারুক’কে লেলিয়ে দিয়ে সাগর চৌধুরীর বসতঘর ভাংচুর করে ব্যাপক ক্ষতি করে।

মনোয়ার বেগম ও তার প্রতিবন্দ্বী মেয়ে সুমির উপর হামলাকারী স্বপন মেম্বারের সন্ত্রাসী বাহিনীর কয়েকজন।

ঘরে থাকা সাগর চৌধুরীর পরিবার ঘরের ভিতরে জিম্মি হয়ে পড়েন। এমন ঘটনায় চেয়ারম্যান গিয়াসউদ্দিন বাচ্চুকে আবারো অবগত করেন সাগর চৌধুরি, ভাঙচুরের ঘটনায় স্থানীয় সাংবাদিক ঘটনাস্থলে গেলে চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন বাচ্চু বিষয়টি সমাধান করে দিবে বলে ঘটনাস্থল থেকে গণমাধ্যম কর্মীরা চলে যায়। বিষয়টি সমাধানের অপেক্ষায় থাকে সাগর চৌধুরী।

এদিকে স্বপন মেম্বার চাউল কম দেওয়ার বিষয়টি ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে রাগে-ক্ষোভে ২২ এপ্রিল বিকেল তিনটায় পুনরায় স্বপন মেম্বারের লোকজন ওই বাড়ীতে হামলা চালিয়ে মনোয়ারা বেগম ও তার প্রতিবন্ধী মেয়ে সুমীকে মারত্মক আহত করে।

তার হামলায় আহত হয় বাকপ্রতিবন্ধী পরিবার আহতরা হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন এদিকে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশগাঁ গ্রামে থমথমে ও পুনরায় সংঘর্ষের আশংকা বিরাজ করছে। হামলার ঘটনায় স্বপন মেম্বারের বিরুদ্ধে হাজীগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

জানতে চাইলে ইউপি সদস্য স্বপন মিয়া বলেন বিষয়টি চাউল কম দেওয়া নিয়ে ঘটেনি অন্য ঘটনা নিয়ে ঘটেছে সাগর চৌধুরি আমার বাড়ির লোক, ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন বাচ্চু বিষয়টি সমাধান করে দেবে বলে আশ্বস্ত করেছেন, অথচ তারা আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে আমি তাকে একবিন্দুও ছাড় দিবে না। এর শেষ কোথায় আছে দেখে নেব।

তিনি বলেন, আমি চাউল কম দেবো কেন? চাউল দেয়ার সময় ট্যাগ অফিসার উপস্থিত ছিলেন। সাগর চৌধুরীকে সর্বশেষ চাউল দেয়ার সময় ওজনে সাড়ে ৬কেজি চাউল হয়েছে। তাই তাকে দেয়া হয়েছে। আর এ ঘটনা নিয়ে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করা হচ্ছে।

Sharing is caring!